পর্যাপ্ত সরবরাহে ক্রেতার নাগালে শীতের সবজি

0
467

রাজু কুমার দে, মিরসরাই :

মিরসরাইয়ে বাজারগুলোতে বাড়তে শুরু করেছে শীতকালীন সবজির সরবরাহ। সরবরাহ বাড়তে থাকায় কমতে শুরু করেছে দাম। ইতিমধ্যে টমেটো, লাউ, শীম, আলু, বেগুন, বরবটিসহ বিভিন্ন শীতকালীন সবজিতে সয়লাব কৃষকের জমি। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ১৬ অক্টোরর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ৯০ হেক্টর জমিতে টমেটো, ৬শ হেক্টর জমিতে শীম, ৫৫ হেক্টরে সরিষা, ৪৫ হেক্টরে বরবটি ও ১শ হেক্টরে লাউ চাষ করা হয়েছে। তবে আগামী ১৫ মার্চ পর্যন্ত শীতকালীন সবজি চাষের সময় রয়েছে। ফলে মার্চের মধ্যে আরো দ্বিগুন সবজি চাষ করবে চাষিরা। তবে ইতিমধ্যে সরিষা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি চাষ হয়েছে। চলতি বছর সরিষা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪০ হেক্টর। কিন্তু চাষ হয়েছে ৫৫ হেক্টর। সরেজমিনে উপজেলার ১৬ ইউনিয়ন ও ২ পৌরসভার ৩৩টি বাজারের মধ্যে সিংহভাগ বাজার ঘুরে দেখা গেছে শীতকালীন সবজির সরবরাহ বাড়ায় কমতে শুরু করেছে দাম। গত কয়েকদিন আগে প্রতি কেজি আলু ৪৫ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকায়। এছাড়া শীম, লাউ, বেগুন, বরবটির দামও কমতে শুরু করেছে। উপজেলার বারইয়ারহাট বাজারে বেগুন বিক্রি করতে আনা কৃষক দীপক দে জানান, কয়েকদিন আগে প্রতি মণ বেগুন বিক্রি করেছেন ১৪শ-১৬শ টাকায়। কিন্তু বর্তমানে বেগুনের সরবরাহ আগের তুলনায় বেড়ে যাওয়া বিক্রি হচ্ছে ৮শ-১হাজার টাকায়। শুধু তাই নয় সব রকমের সবজির দাম কমতে শুরু করেছে। কিছু দিন পর আরো কমে যাবে বলে জানান এই কৃষক। উপজেলার মিঠাছরা বাজারে চট্টগ্রাম থেকে সবজি কিনতে আসা পাইকার আমির উদ্দিন জানান, ধীরে ধীরে মিরসরাইয়ের বাজারগুলোতে শীতকালীন সবজির সরবরাহ বাড়তে শুরু করেছে। তাই দাম অনেক কমে গেছে। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রঘুনাথ নাহা জানান, বাজারগুলোতে আগের তুলনায় শীতকালীন সবজির সরবরাহ বেড়েছে। তাই দাম কমছে। সরবরাহ যত বেশি বাড়বে দাম তত বেশি কমবে। তবে চলতি বছর মিরসরাইয়ে প্রত্যেকটি শীতকালীন সবজির ভালো চাষ হয়েছে।