পটিয়ায় ৮ দোকান ও লোহাগাড়ায় ১৩ জেলের বসতঘর পুড়ে গেছে

0
114

অগ্নিকাণ্ড
নিজস্ব প্রতিনিধি, পটিয়া ও লোহাগাড়া :

অগ্নিকাণ্ডে পটিয়ায় ৮ দোকান ও লোহাগাড়ায় ১৩ জেলের বসতঘর পুড়ে গেছে। সোমবার পৃথক এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, পটিয়া উপজেলার পাচুরিয়া এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে ৮টি দোকানের নগদ টাকাসহ ১০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে। সোমবার গভীর রাতে পটিয়ায় এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হাসান জানিয়েছেন, উপজেলার পাচুরিয়া এলাকায় পিপলু বড়ুয়া, সন্তোষ নাথ, নান্টু নাথসহ ৮ জনের দোকান পুড়ে গেছে। এতে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১০ লাখ টাকা। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। আগুনের খবর পেয়ে পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
এদিকে, লোহাগাড়ায় পদুয়া ইউনিয়নের উত্তর জলদাস পাড়ায় আগুনে পুড়ে গেছে ১৩ পরিবারের বসতঘর। ১৮ জানুয়ারি সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ১৩ পরিবারের ৭০ সদস্য মানবেতর দিনাতিপাত করছে। ক্ষতিগ্রস্তরা হলো সোনারাম, চিত্তরঞ্জন, সুমন, প্রয়াত ছোটন, সুবল, পরিমল, মৃদুল, সুধীর, নন্দ, রবি, রিতা, রুবেল ও শ্রীধাম জলদাসের পরিবার।
জানা গেছে, ছোটন জলদাসের ঘরের ফ্রিজে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে ১৩ বসতঘরে ছড়িয়ে পড়ে আগুন। খবর পেয়ে সাতকানিয়া থেকে ফায়ার সার্ভিসের দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে এবং ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে লোহাগাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাশেদুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোসদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সোনারাম জলদাশসহ অন্যরা জানিয়েছেন, পদুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. জহির উদ্দিন তাদের রাতের খাবার দিয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন নিকটস্থ পদুয়া ওয়ার্ডের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে। সেখানে এলাকার লোকজন তাদের খাবার ও আর্থিক সহযোগিতা দিয়েছেন।
এরপর থেকে তাদের দিনাতিপাত কিভাবে হবে তা নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগছেন তারা।