পঁচিশ বছরে অনেকটা সময় বাড়িতেই কাটিয়েছেন ববি দেওল

0
214

সুপ্রভাত ডেস্ক :
বলিউডে সিলভার জুবিলি পার করলেন ববি দেওল। ধর্মেন্দ্র-পুত্র স্মৃতিমেদুর এক ভিডিওতে জানালেন, এই অক্টোবর মাসেই পঁচিশ বছর আগে বলিউড ছবির আঙিনায় প্রবেশ ঘটেছিল তার। ছবির নাম সবারই জানা। ‘বরসাত’। প্রথম দর্শনেই ভিজিয়ে দিয়েছিল তামাম নারীর হৃদয়।
বিপরীতে টুইঙ্কল খন্না। রাজেশ খান্নার বড় কন্যা ও ধর্মেন্দ্রর ছোট পুত্র যে পরম্পরা তত্ত্ব বজায় রেখে সিনেমাতেই ডেবিউ করলেন, তা নিয়ে পত্রপত্রিকায় আলোচনা কম হয়নি। ববি দেওল বরাবরই শান্ত স্বভাবের মানুষ। প্রথম দিনের শুটিং কতটা উত্তেজনা মুহূর্ত ছিল, আজ ফিরে দেখলেন। ভিডিও দেখে অনেকেই অনুপ্রাণিত, অনেকে আবার আবেগপ্রবণ। টুইঙ্কল খন্না জানিয়েছেন, ববি, আমাদের প্রথম দেখা যেদিন হয়েছিল, আমাদের ছেলেরা এখন সেই বয়সে পৌঁছেছে।
টুইঙ্কলও অক্ষয় কুমারের ঘরণি হওয়ার পর অভিনয় ছেড়েছেন। অধুনা তিনি এক পুত্র ও এক কন্যার মা। ছেলে আরভ ও মেয়ে নিতারা। টুইঙ্কলের ছেলে আরভ ও ববির ছেলে আর্যমান সমবয়সি। ববির আর এক পুত্র ধর্মেশ। ববির বলিউড কেরিয়ারকে এককথায় বলা চলে ‘নাতিশীতোষ্ণ’। জীবনে ওঠাপড়া দেখেছেন অনেক। হোম প্রোডাকশনে বাবার সঙ্গে ছবি করেছেন দুই ভাই। কিন্তু সমসাময়িক তারকাদের তুলনায় অনেকটাই কম ব্যবহার করা হয়েছে তাকে। অতি সম্প্রতি এক ইন্টারভিউতে বলেছেন তিনি, ‘আমার ছেলেরা বেশিরভাগ সময়ে আমায় বাড়িতেই দেখে। বাড়িতে থাকা অভ্যাস হয়ে গিয়েছে আমার, লকডাউন বলে নয়’। কথাটি ঠাট্টা করে বললেও, অনেক কিছুই বলে দিয়েছেন তিনি। এই প্যানডেমিকের সময়ে নতুন করে আত্মপ্রকাশ ঘটল তার। প্রকাশ ঝার ওয়েব সিরিজ ‘আশ্রম’ এ বাবার ভূমিকায় তার অত্যন্ত সংযত অভিনয় মুগ্ধ করেছে সবাইকে। হাউজ অফ ৮৩ ওয়েব সিরিজে তার অভিনয় দেখে তাবড় ক্রিটিকরাও প্রশ্ন কিনেছেন, ববিকে এত পরে কেন আবিষ্কার করলো বলিউড? কিন্তু এই মুহূর্তে ওয়েব দুনিয়ায়, সব ছক উল্টে দিয়ে কদর বাড়ছে ববির। কিন্তু তার জীবনের যাবতীয় সাফল্য উৎসর্গ করেছেন বাবাকে। ‘বাবা ও দাদার সঙ্গে করা ছবিগুলো আজও আমার প্রাণের চেয়ে প্রিয়। অনন্য সম্পদ।’ খবর : নিউজ১৮’র।