চট্টগ্রামের স্বার্থে সর্বোচ্চ ত্যাগ দিতে প্রস্তুত

0
79

গণসংযোগকালে মেয়র পদপ্রার্থী রেজাউল করিম

২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য চসিক নির্বাচনে ভোটারদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।
গতকাল বিকেলে নগরীর পশ্চিম ষোলশহর, শুলকবহর ও চকবাজার ওয়ার্ডে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, নগর আওয়ামী লীগের সদস্য মো. বেলাল উদ্দিন, চকবাজার থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহবুদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আনসারুল হক, নগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ, স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কে বি এম শাহজাহান, ৭ নম্বর পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক আবদুল রহিম, কাউন্সিলর প্রার্থী মো. মোবারক আলী, ৮ নম্বর শুলকবহর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শেখ সরওয়ার্দী, কাউন্সিলর প্রার্থী মোরশেদ আলম, যুবলীগ নেতা নুরুল আনোয়ার, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা দেবাশীষ নাথ দেবু, চকবাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাহেরুল ইসলাম, কাউন্সিলর প্রার্থী সায়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী জেসমিন পানভীন জেসী, রুমকি সেন গুপ্তসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মী গণসংযোগে যুক্ত হন এবং নৌকা প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করেন।
গণসংযোগকালে বিভিন্ন স্থানে পথসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, দেশ-জাতি ও চট্টগ্রামের স্বার্থে সর্বোচ্চ ত্যাগ দিতে প্রস্তুত। বঙ্গবন্ধুর ডাকে মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রাণপণ রেখে হানাদারের বিরুদ্ধে লড়াই করেছি। বঙ্গবন্ধু আমাদের শিখিয়ে গেছেন কি করে মানুষকে ভালোবাসতে হয়, কি করে মানুষের কল্যাণ করতে হয়।
তিনি আরও বলেন, করোনা মহামারীতে যখন ডাক্তার নার্সদের নিয়ে মানুষকে সেবা দিতে, সাহস দিতে নগরব্যাপী ছুটে বেড়াচ্ছিলাম। ডাক্তার নামের এক ব্যক্তি মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মী ও ক্লিনিক মালিকদের মনোবল ভেঙ্গে দিয়েছিলেন। আমরা যখন রোগীদের দ্রুত হসপিটালে আনার জন্য গাড়ী, অক্সিজেন নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি, তখন ডাক্তার নামের ওই ব্যক্তির প্ররোচনায় ক্লিনিকগুলোতে তালা ঝুলানো হয়েছে। হাসপাতাল, ক্লিনিকের গেটে স্বজন হারাতে হয়েছে আমাদের। আমরা যখন ব্যক্তি উদ্যোগে সাধারণ চিকিৎসা দিতে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প করছি, করোনা সন্দেহভাজন রোগীদের জন্য আইসোলেশন সেন্টার করে অক্সিজেন নিশ্চিত করে যাচ্ছি, তখন ওই ডাক্তার সাহেব ও তার দলের লোকেরা ঘরে বসে বসে অন লাইনে গুজব ছড়াতে ব্যস্ত ছিল।
রেজাউল করিম বলেন, রাজনীতি করি মানুষের কল্যাণের জন্য, মেয়র হতে চাই মানুষের সেবা করার জন্য। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা চট্টগ্রামকে আন্তর্জাতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ একটি সিটি হিসেবে গড়তে চান। চট্টগ্রামের মানুষের জীবনমানের উন্নতি করতে চান। চট্টগ্রামের মানুষের সেবা করার জন্য, গুরুত্বসম্পন্ন উন্নত বিশ্বমানের চট্টগ্রাম গড়ার জন্য তিনি আমার প্রতি আস্থা রেখে মেয়র পদে মনোনয়ন ও নৌকা প্রতীক দিয়ে আপনাদের কাছে পাঠিয়েছেন ভোট চাইতে।
আগামী ২৭ জানুয়ারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসব মুখর পরিবেশে স্বতঃস্ফূর্তভাবে নৌকা প্রতীকে ভোট দানের আহ্বান জানান তিনি। মেয়র নির্বাচিত হয়ে আমি মাদক, সন্ত্রাস, রাহাজানি, যানজট, জলজট মুক্ত এবং পরিবেশবান্ধব, নারী ও শিশুবান্ধব, শিক্ষা-সংস্কৃতি-ক্রীড়াবান্ধব, বাণিজ্য অনুকূল, স্বাস্থ্যসম্মত নগরী হিসেবে গড়ে তুলবো।
এছাড়াও তিনি দুপুরে স্বজন সুপার মার্কেট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন। সভায় রেজাউল করিম বলেন, উন্নয়নের নেত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামকে দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনৈতিক হাব হিসাবে গড়ে তুলতে সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছেন। আপনাদের ভোটে ও দোয়ায় মেয়র নির্বাচিত হলে সকল শ্রেণীর প্রতিনিধির পরামর্শক্রমে ব্যবসাবান্ধব নগরী গড়ে তুলবো।
সভায় নগর আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আহমদুর রহমান সিদ্দীকি, মোহাম্মদ শাহজাহান সুফি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন। কল্যাণ সমিতির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন লিটনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবুল মনসুর সিকদার এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন আবুল কাশেম, মো. এখতেয়ার হোসেন, দিদারুল আলম, খোরশেদ আলম, মো. শাহ আলম, মো. মামুন খলিফা, মো. আবদুর রশিদ, হারুনুর রশিদ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। বিজ্ঞপ্তি