গাব্বা টেস্ট : লাবুশানে সেঞ্চুরিতে প্রথম দিন অস্ট্রেলিয়ার

0
114
সেঞ্চুরিয়ান লাবুশানের একটি বাউন্ডারির শট - ক্রিকইনফো

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
ক্রিকেট ঈশ্বর হয়তো টিম ইন্ডিয়ার রিজার্ভ বেঞ্চের গভীরতা মাপছেন। নাহলে অজিদের বিরুদ্ধে সিরিজের এই মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে একের পর এক তারকা চোট কেন পাবেন? শেষপর্যন্ত চেষ্টা করা হলেও, এদিন অশ্বিন বা বুমরাহ কাউকেই খেলানো যায়নি। যার জেরে গাব্বায় অভিষেক হয়েছে দু’জনের। একজন ওয়াশিংটন সুন্দর। অপরজন আইপিএল এবং টি-২০ সিরিজে নজর কাড়া টি নটরাজন। এদিন বুমরাহর জায়গায় সুযোগ পেয়েছেন শার্দূল ঠাকুর। চোট আঘাতের কারণে সিরিজের শেষ ম্যাচে একেবারেই অনভিজ্ঞ বোলিং লাইনআপ নামাতে বাধ্য হয়েছে ভারত। গোটা বোলিং বিভাগের অভিজ্ঞতা মাত্র চার টেস্টের। কিন্তু তাতেও রক্ষা নেই। খেলা শুরুর পর চোট ফের আঘাত হেনেছে ভারতীয় শিবিরে। বল করতে গিয়ে কুঁচকিতে চোট পেয়ে মাঠের বাইরে গিয়েছেন নভদীপ সাইনি। যা সমস্যা আরও বাড়িয়েছে।
টিম ইন্ডিয়ার বোলিং লাইনআপের এই অনভিজ্ঞতার সুযোগ নিয়ে প্রথম দিনের শেষ বেশ সুবিধাজনক জায়গায় পৌঁছে গেল অজিরা। দিনের শেষে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৫ উইকেটের বিনিময়ে ২৭৪। এদিন আরও একবার অনবদ্য ইনিংস খেললেন মার্নস লাবুশানে। মূলত তার অনবদ্য ইনিংসে ভর করেই অজিরা প্রথম ইনিংসে ভাল স্কোরে পৌঁছানোর মতো জায়গায় পৌঁছে গেল। এর জন্য অবশ্য ভারতের ফিল্ডিংকেও খানিকটা দায়ী করতে করতে হয়। কারণ লাবুশানে, পেইনের একাধিক ক্যাচ এদিন ফসকে ফেলেছেন ভারতীয় পেসাররা।
ব্রিসবেনের পেস সহায়ক উইকেটে এদিন টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় অজিরা। প্রথমে বল করতে নেমে শুরুটা ভালই করে ভারত। মাত্র ১৭ রানের মধ্যে অজিদের ২ উইকেটের পতন ঘটে। কিন্তু তারপরই ইনিংসের হাল ধরেন লাবুশানে এবং স্মিথ। জুটি বেঁধে ৭০ রান তোলেন তারা। স্মিথ ৩৬ রানে আউট হলেও লাবুশানে দুর্দান্ত শতরান করেন। তিনি আউট হন ১০৮ রানে। ম্যাথু ওয়েড করেন ৪৫ রান। আপাত্ত পেইন ৩৮ এবং গ্রিন ২৮ রানে অপরাজিত। ভারতের হয়ে এদিন টেস্ট কেরিয়ারের প্রথম উইকেট পান তিনজন নটরাজন, সুন্দর এবং শার্দূল। খবর : সংবাদপ্রতিদিন’র।