কাউন্সিলর পদে আবদুস সালাম জয়ী

0
219

৩১ নম্বর আলকরণ ওয়ার্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) স্থগিত থাকা ৩১ নম্বর আলকরণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রাপ্ত মোহাম্মদ আবদুস সালাম জয়ী হয়েছেন। নির্বাচনে মোহাম্মদ আবদুস সালাম (লাটিম) প্রতীকে ৩ হাজার ৩৫০ ভোট পেয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। গতকাল রোববার সকাল ৮ থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ৩১ নম্বর আলকরণ ওয়ার্ডের ৭টি কেন্দ্রের ৪২টি বুথে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট অনুষ্ঠিত হয়।
চসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের তথ্যমতে, ৭টি কেন্দ্রের ৪২টি বুথে ১৫ হাজার ১৯০ ভোটের মধ্যে ভোট প্রদান করেছে ৪ হাজার ৫০৩ জন ভোটার। নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিল ২৯ দশমিক ৬৮ শতাংশ। ৪ হাজার ৫০৩ ভোটের মধ্যে লাটিম প্রতীকে মোহাম্মদ আবদুস সালাম পেয়েছেন ৩ হাজার ৩৫০ ভোট, মিষ্টি কুমড়া প্রতীকে মো. ইয়াসিন আরাফাত ৭৭০ ভোট, রেডিও প্রতীকে মোহাম্মদ দিদারুর রহমান ৩৫৮ ভোট এবং ঠেলাগাড়ি প্রতীকে মো. হানিফ ভূইয়া পেয়েছেন ২৫ ভোট।
সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, ভোটের কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি চোখে না পড়লেও কেন্দ্রের বাইরে জটলা বেঁধে লাটিম প্রতীকের সমর্থকদের ঘুরতে দেখা গেছে।
বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চিটাগাং স্কলারস স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, ভোটার উপস্থিতি না থাকায় ভোটগ্রহণ কর্মকর্তারা অনেকটা অলস বসে সময় কাটাচ্ছে। সে সময় কেন্দ্রের ভেতরে ভোটার না থাকলেও কেন্দ্রের আশেপাশের অলিগলিতে লোকজনের ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। পরে কাউন্সিলর প্রার্থী মো. ইয়াসিন আরাফাতের অভিযোগ করলে র‌্যাব ও ডিবি পুলিশের সদস্যরা আসার পরে কেন্দ্রের বাইরে থেকে বহিরাগতদের সরিয়ে দেয়। এ সময় কাউন্সিলর প্রার্থী মো. ইয়াসিন আরাফাত অভিযোগ করে বলেন, আমার ভোটারদের প্রতিপক্ষ লাটিম প্রতীকের সমর্থকরা কেন্দ্রে আসতে বাধা দিচ্ছে।
উল্লেখ্য, ১৮ জানুয়ারি আলকরণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী তারেক সোলেমান সেলিম মারা যাওয়া ২০ জানুয়ারি এ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদের নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। পরবর্তীতে ২৫ জানুয়ারি এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ২৮ ফেব্রুয়ারি স্থগিত নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। গত ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত চসিক নির্বাচনে এ ওয়ার্ডে মেয়র ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদের ভোট অনুষ্ঠিত হলেও কাউন্সিলর পদে নির্বাচন স্থগিত থাকে।