করোনার ছোবল থেকে রেহাই পেলেন না চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য পরিচালকও!

0
697

নিজস্ব প্রতিবেদক :

চট্টগ্রাম বিভাগের স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর যিনি চট্টগ্রামে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় অতন্দ্র প্রহরী ছিলেন , এবার তাঁকেই আক্রান্ত করলো করোনা! গত ২৫ মে ফৌজদারহাট বিআইটিআইডি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীরের কোভিড-১৯ সনাক্ত হয়। এর আগের দিন তিনি নিজ বাসায় আইসোলেশনে (আলাদাভাবে থাকা) চলে যান। শরীরে জ্বর ও কাশি থাকায় গত ২৪ মে বিআইটিআইডিতে নমুনা পাঠান তিনি। গত ২৬ মে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মোস্তফা খালেদ আহমদকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের সাময়িক সময়ের জন্য দায়িত্ব দেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

করোনা সনাক্ত হওয়ার বিষয়টি এতো দিন গোপন রেখেছিলেন ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর। বিআইটিআইডি ল্যাবের দৈনিক ফলাফলের রিপোর্টেও তাঁর নাম প্রকাশ করা হয়নি। জেলা সিভিল সার্জনও জানেন না স্বাস্থ্য পরিচালক করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি।

জেলা সিভিল সার্জন ডা.সেখ ফজলে রাব্বি সুপ্রভাতকে বলেন, তিনি (স্বাস্থ্য পরিচালক) আমাকে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়ে কিছু বলেননি। তিনি শুধু আইসোলেশনে রয়েছেন বলে আমাকে জানিয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার বিআইটিআইডি ল্যাবের একজন কর্মকর্তা সুপ্রভাতকে চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য পরিচালকের করোনা পজিটিভ সনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বাসায় আইসোলেশনে থাকা ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীরের সাথে আজ দুপুরে ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি সুপ্রভাতের কাছে তাঁর করোনা পজিটিভ সনাক্ত হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন। তিনি বলেন, আমার শরীরে প্রচন্ড জ্বর ও কাশি রয়েছে। ভীষণ অসুস্থ বোধ করছি। সকলের কাছে আমি দোয়া চাই।

কীভাবে আক্রান্ত হয়েছেন বলে মনে করছেন-এর উত্তরে তিনি বলেন, ‘সম্ভবত অফিসের কাগজ-পত্র থেকে আমার দেহে করোনার সংক্রমণ হয়ে থাকতে পারে। কারণ আমি বাসার বাইরে থাকাকালে অফিসে ও বিভিন্ন জায়গায় যেখানে গিয়েছিলাম আমার শরীরে পিপিই (ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম) থাকতো।’ তিনি ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকবেন বলে জানান।