কমিশনে রেজাউলের ৩ অভিযোগ,শাহাদাতের ১৩

0
93

আজ শেষ নির্বাচনী প্রচারণা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আজ মধ্যরাতের পর শেষ হচ্ছে নির্বাচনী প্রচারণা। গত ৮ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এ প্রচারণায় প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘাত, পোস্টার ছেঁড়াসহ বিভিন্ন সহিংসতা ছিল। এরমধ্যে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেছে।
নির্বাচনী প্রচারণায় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর হামলা, প্রাণনাশের হুমকি, পোস্টার ছেঁড়া এবং প্রচারণার গাড়ি ভাঙচুরসহ বিভিন্ন অভিযোগ জমা পড়েছে নির্বাচন কমিশনে। গতকাল রোববার পর্যন্ত চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও চসিক রিটার্নিং অফিসার কার্যালয়ে এসব অভিযোগ করা হয়।
চসিক রিটার্নিং অফিসার কার্যালয়ে তথ্যমতে, অভিযোগে আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরীর থেকে এগিয়ে আছে বিএনপি মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন। শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে রেজাউল করিম ৩টি অভিযোগ করলেও বিপরীতে রেজাউল করিমের বিরুদ্ধে ১৩টি অভিযোগ করেন শাহাদাত হোসেন। শাহাদাত হোসেনের অভিযোগের মধ্যে পোস্টার ছেঁড়া, প্রচারণা সময় হামলা ও কর্মীদের প্রাণনাশের হুমকি। এছাড়া রেজাউলের অভিযোগের মধ্যে পোস্টার ছেঁড়া, প্রচারণায় হামলা ও আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ।
এছাড়া অভিযোগ প্রদানে এগিয়ে আছে কাউন্সিলর প্রার্থীরা। গত শনিবার পর্যন্ত ৫৬টি অভিযোগের মধ্যে ৪১টি অভিযোগ কাউন্সিলর প্রার্থীদের। এসব অভিযোগে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের প্রাণনাশ, ভোট কেন্দ্রে এজেন্টের ওপর হামলা ও কেন্দ্র দখলের হুমকি রয়েছে। এছাড়া পোস্টার ছেঁড়া, প্রচারণাকালে হামলা, প্রচারণার গাড়ি ও মাইক ভাঙচুর ও আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিভিন্ন অভিযোগ করেছে।
নির্বাচনী অভিযোগ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) নুরুল হুদা বলেন, গতকাল (শনিবার) পর্যন্ত ৫৬টি অভিযোগের মধ্যে ইতিমধ্যে ৩৫টি অভিযোগ নির্বাচন কমিশন নিষ্পত্তি করেছে। এছাড়া যেসব অভিযোগ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তান্তর করা হয়েছে সেসব অতি দ্রুত নিষ্পত্তি করার জন্য কমিশন থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।