দীর্ঘ হলো ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়ের অপেক্ষা

0
101
ওল্ড ট্রাফোর্ডে বৃষ্টি ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়ের অপেক্ষা বাড়িয়ে দিয়েছে - ক্রিকইনফো

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
ব্রড যে ফর্মে বিচরণ করছেন তাতে চতুর্থদিন ইংল্যান্ডের তৃতীয় টেস্ট জয় কেবল সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছিল বিশেষজ্ঞ মহল। কিন্তু ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে তৃতীয় টেস্টের চতুর্থ দিন আবহাওয়া সাময়িক স্বস্তি দিয়ে গেল ক্যারিবিয়ান শিবিরে। বৃষ্টির এবং তার জেরে ভিজে আউটফিল্ডের কারণে সোমবার একটিও বল গড়াল না ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের বাইশ গজে। পরিত্যক্ত হয়ে গেল তৃতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনের খেলা। ফলে আট উইকেট দূরে দাঁড়িয়ে ইংল্যান্ডের ম্যাচ এবং উইজডেন ট্রফি জয়ের অপেক্ষা দীর্ঘায়িত হল বলা যায়।
দ্বিতীয় টেস্ট জিতে সিরিজে সমতা ফেরানোর পর তৃতীয় টেস্টের শুরু থেকেই ম্যাচের রাশ মোটামুটি নিজেদের দখলে রেখেছে থ্রি-লায়ন্সরা। প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের ৩৬৯ রানের জবাবে তৃতীয়দিন ওয়েস্ট ইন্ডিজ গুটিয়ে গিয়েছিল মাত্র ১৯৭ রানে। ব্যাট হাতে দুরন্ত অর্ধশতরানের পর বল হাতে ৬ উইকেট নিয়ে সফরকারী শিবিরে একাই ধস নামিয়েছিলেন স্টুয়ার্ট ব্রড।
বড় ব্যবধানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে রোববার ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। ররি বার্নস এবং ডম সিবলের শতরানের ওপেনিং পার্টনারশিপ ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুর্দশা আরও প্রকট করে তোলে। দলীয় ১১৬ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৫৬ রানে সিবলে আউট হলেও অধিনায়ক রুটকে নিয়ে শতরানের দিকে ভালোই এগোচ্ছিলেন আরেক ওপেনার বার্নস। কিন্তু শতরান থেকে মাত্র দশ রান দূরে বার্নস রস্টন চেজের শিকার হতেই দ্বিতীয় ইনিংস ডিক্লেয়ার ঘোষণা করেন রুট। অধিনায়ক নিজে অপরাজিত থাকেন ব্যক্তিগত ৬৮ রানে। দ্বিতীয় উইকেটে ১১২ রান যোগ করেন বার্নস-রুট জুটি।
৩৯৯ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে খেলতে নেমে ফের ব্রডের ছোবলে দিশেহারা হয়ে যায় ক্যারিবিয়ানরা। দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম ওভারেই ক্যাম্পবেলকে ফিরিয়ে দেন ব্রড। এরপর নাইট-ওয়াচম্যান হিসেবে কেমার রোচ ব্যাট হাতে নামলে তাকে নিজের দ্বিতীয় ওভারে ফেরত পাঠান সেই ব্রড। তৃতীয় দিনের শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেট হারিয়ে উইন্ডিজ ১০ রান সংগ্রহ করে খেলা শেষ করে। ক্রিজে ২ রানে অপরাজিত ক্রেগ ব্রাথওয়েট এবং ৪ রানে অপরাজিত থেকে যান শাই হোপ। ফলত চতুর্থদিন অর্থাৎ সোমবারই ইংল্যান্ডের জয়ের অপেক্ষায় প্রহর গুনছিলেন অনুরাগীরা। কিন্তু বৃষ্টি বাধ সাধল সবকিছুতে।
পঞ্চমদিনও সোমবারের পুনরাবৃত্তি ঘটলে ট্রফি শেয়ার করে নেবেন দুই অধিনায়ক। আর খেলা শুরু হলে ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ৮ উইকেট। পক্ষান্তরে জয়ের জন্য ৩৮৯ রান প্রয়োজন ক্যারিবিয়ানদের। ব্রডদের আগুনে স্পেলের বিরুদ্ধে ম্যাচ জয়ের দিকে না ঝুঁকে ম্যাচ বাঁচানোই সেক্ষেত্রে প্রাথমিক এবং একমাত্র লক্ষ্য হবে হোল্ডার অ্যান্ড কোম্পানির। যা পরিস্থিতি তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে সিরিজ হারের থেকে রক্ষা করতে পারে একমাত্র বৃষ্টি।
খবর : কলকাতাটোয়েন্টিফোর’র।