পূর্ব গুজরার বামাচরন সড়কের নির্মাণকাজ চলছে

0
123

১ কোটি ৬৭ লাখ টাকা ব্যয় নির্ধারণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান :

রাউজান উপজেলার ১০ নম্বর পুর্ব গুজরা ইউনিয়নের আধার মানিক এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী সড়কের নুনা পুকুর পাড় থেকে শুরু হওয়া বামাচরন সড়কটি আধার মানিক ঠাকুর বাড়ি, আয়েশার বাপের বাড়ি, গোল মোহাম্মদ তালুকদার বাড়ি,উমা বোর্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হয়ে পশ্চিম আধার মানিক হয়ে পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নে ডোমখালী এলাকায় মরহুম শফিকুল ইসলাম চৌধুরী সড়কের সাথে মিলিত হয়েছে বামাচরন সড়ক। বামাচরন সড়ক দিয়ে প্রতিদিন আধার মানিক, পশ্চিম আধার মানিক, ডোমখালী ও উত্তর গুজরার হাজার হাজার মানুষ নিত্য নৈমত্তিক কাজে চলাচল করে। বামাচরন সড়ক দিয়ে শত শত স্কুল কলেজ, মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা চলাচল করে। বামাচরন সড়কটি রাউজান উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর কয়েক বছর পুর্বে  ব্রিক সলিংয়ের কাজ করা হলে ও বন্যা হালদা নদী, কাগতিয়া খালের জোয়ারের পানিতে ডুবে সড়কটি বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। এতে হাজার হাজার মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিয়ে চলাচল করতো। এলাকার হাজার হাজার মানুষের চরম দুর্ভোগ লাঘবে রাউজানের সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর একান্ত প্রচেষ্টায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তদর নুনা পুকুর পাড় থেকে দুটি কালভার্ট নির্মাণ করাসহ সড়কটি আর, সি,সি ঢালাই করে নির্মাণ কাজের জন্য টেন্ডার আহবান করলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স বায়েজিদ এন্টারপ্রাইজ সড়কের নির্মাণ কাজের ঠিকাদারি নেয়।

ঠিকদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স বায়েজিদ এন্টারপ্রাইজ আধার মানিক উমা বোর্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুর্ব পাশ থেকে সড়কের আর, সি,সি ঢালাই ও সড়কের পাশে গার্ড ওয়াল দুটি কালভার্ট নির্মানের কাজ শুরু করে। সড়কের নির্মান কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সড়কের নির্মান কাজ শেষ হবে বলে সড়কের নির্মান কাজে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের তদারককারী জয়নাল আবেদীন আশা করছেন। পুর্ব গুজরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সড়কের পাশে আয়েশার বাপের বাড়ির বাসিন্দা রোসাঙ্গীর আলম বলেন, এলাকার হাজার হাজার মানুষের চলাচলের সড়ক বামাচরন সড়কটি সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অর্থায়নে নির্মান করে এলাকার মানুষের চলাচলের দুর্ভোগ লাঘব করছেন । সড়কটির নির্মান কাজ শেষ হলে এলাকার হাজার হাজার মানুষের দীর্ঘদিনের চরম দুর্ভোগ লাঘব হবে।