‘কভিড মোকাবিলায় ফার্মাসিস্টদেরও অন্তর্ভুক্ত করা দরকার’

0
77
বিজিসি ট্রাস্টের ভার্চুয়াল আলোচনায় অংশগ্রহণকারীরা

 

বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্র্সিটি বাংলাদেশ’র ফার্মেসী বিভাগের উদ্যোগে ২য় থেকে ৮ম সেমিস্টারের জুলাই-ডিসেম্বর, ২০২০ সেশনের অনলাইন ক্লাস উদ্বোধন ও বাংলাদেশের কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ও ট্রেডিশনাল মেডিসিনের  ভূমিকা শীর্ষক ভার্চুয়াল আলোচনা আজ ২০ জুলাই (সোমবার) সকাল ১১টায় বিভাগের চেয়ারম্যান অনিন্দ কুমার নাথের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে অনলাইনে অনুষ্ঠান উদ্বোাধন করেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্র্সিটি বাংলাদেশ’র ট্রেজারার ও ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর আ ন ম ইউসুফ চৌধুরী। অনলাইন আলোচনায় কী নোট স্পিকার হিসেবে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’র ফার্মেসি বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. সিতেশ চন্দ্র বাছার।

আরো বক্তব্য রাখেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্র্সিটি বাংলাদেশ’র পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. নারায়ণ বৈদ্য, রেজিস্ট্রার এএফএম আখতারুজ্জামান কায়সার। ফার্মেসি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. তালহা বিন ইমরান’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শিক্ষকমন্ডলী ও শিক্ষার্থীরা অনলাইনে সংযুক্ত ছিলেন।

প্রফেসর ড. সিতেশ চন্দ্র বাছার বলেন, যেহেতু বিশ্বে এখনও কোভিড-১৯ চিকিৎসায় কোন সুনির্দষ্ট ঔষধ ও ভ্যাকসিন আবিস্কৃৃত হয়নি, তবে অনেকেই আবিষ্কারের কাছাকাছি পর্যায়ে রয়েছে। বাংলাদেশও এ প্রষ্টোয় পিছিয়ে নেই। কিন্তু এ পরিস্থিতিতে আধুনিক ঔষধের পাশাপাশি ট্রেডিশনাল মেডিসিনও কোভিড-১৯ মোকাবেলায় ভূমিকা রাখছে। বাংলাদেশের কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফার্মাসিস্টদের অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন। এছাড়া তিনি অনলাইন শিক্ষায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে সময়কে কাজে লাগানোর জন্য শিক্ষার্থীদেরকে অনুরোধ জানান।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর আ ন ম ইউসুফ চৌধুরী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশে সরকার তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়ন সাধন করেছে বলেই বর্তমান অনলাইন শিক্ষার মাধ্যমে কার্যক্রম পালন করা সম্ভব হচ্ছে। বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্র্সিটি বাংলাদেশ-এর ফার্মেসি বিভাগের উদ্যোগে এ অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য তিনি সকলকে ধন্যবাদ জানান। বিজ্ঞপ্তি