বেঁচে থাকলে ২০২৪ সালে চাঁদে যেতেন সুশান্ত

0
64

 

সুপ্রভাত ডেস্ক :

এই দিনটার দিকে তাকিয়েই তো বাঁচা যেত সুশান্ত! এই দিনটাকে মনে রেখে আর বাদ বাকি জীবন কাটানো। যে চাঁদকে পৃথিবীরে মাটি থেকে দেখে বড় হওয়া, সেই চাঁদের মাটিতে পা দেওয়ার সুযোগ ক’জন পায়!

তবে পারলেন না সুশান্ত। সমুদ্রের মতো গভীর দুঃখ, মানসিক চাপ নিয়েই মৃত্যুলোকে পাড়ি দিলেন নায়ক। পিছনে রেখে গেলেন মৃত্যু রহস্য।

১৪ জুন গোটা বিশ্ববাসীকে হতবাক করে মৃত্যুলোকে পাড়ি দিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত। তার জীবনের এরকম পরিণতি এখনও যেন মেনে নিতে পারছে না কেউ। সুশান্তের মৃত্যু আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত খুন! তা নিয়ে এখনও রহস্য বেড়েই চলেছে। সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গেই সামনে এসেছে বলিউডের বিভৎস চেহারা। নেপোটিজম বিতর্ক। একের পর এক নাম  জড়িয়েছে বলিউডের বিগ স্টারদের। সোশ্যাল মিডিয়ায় সুশান্তের জন্য ন্যায় চেয়ে নানা ফোরাম! এরই মধ্যে সময় জলের মতো এগিয়ে গিয়েছে। এক মাস কেটে গেল সুশান্ত নেই !

ঠিক এই সময়ই সামনে এল সুশান্ত সিং রাজপুতের এক পুরনো ইনস্টাগ্রামের পোস্ট এবং এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকার। যেখানে সুশান্ত বলেছিলেন, ‘ট্রেনিং নিচ্ছি। নিজেকে তৈরি করছি। ২০২৪ সালে নাসা নভোশ্চরদের ফের চাঁদে পাঠাবে। আমিও তার অংশ হতে চাই। ’

‘চন্দা মামা দূর কে’ নামে বলিউডে তৈরি হওয়ার কথা ছিল এক ছবি। সেই ছবির জন্যই নানা ওয়ার্কশপে অংশ নিয়েছিলেন সুশান্ত। গিয়েছিলেন নাসাতেও। ওয়ার্কশপ শেষে পেয়েছিলেন সার্টিফিকেটও। সেই থেকেই বলা ভাল মহাকাশ নিয়ে আগ্রহ বেড়ে যায় সুশান্তের। পড়তে শুরু করেন নানা বইপত্র। টেলিস্কোপ কিনে রোজ রাতে আকাশে চোখ রাখাই ছিল সুশান্তের হবি। আর আকাশে দেখতে দেখতেই তারা, চাঁদের প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন সুশান্ত ! সেই আকাশ, সেই চাঁদ, সেই তারা থাকলেও, সুশান্ত নেই। নেই বলিউডের উজ্জ্বল তারকা।

খবর : নিউজ১৮’র।