করোনা রোগীদের সেবা দিচ্ছে ‘অক্সিজেন ফর লাইফ বাংলাদেশ’

0
258

বিনামূল্যে মিলবে অক্সিজেন #

রুমন ভট্টাচার্য :
চট্টগ্রামে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে প্রতিদিন হাসপাতালে যাচ্ছে মানুষ। করোনার প্রভাবে চাহিদা বেড়েছে অক্সিজেনের। ফলে প্রতিটি অক্সিজেন সিলিন্ডার বিক্রি হচ্ছে নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দামে। এমন অবস্থায় অক্সিজেনের সংকট মোকাবেলায় রোগীদের জীবন বাঁচাতে বিনামুল্যে অক্সিজেনসহ সিলিন্ডার সরবরাহ করছে ‘অক্সিজেন ফর লাইফ বাংলাদেশ।’
চট্টগ্রামের কিছু তরুণ এ কার্যক্রম শুরু করেছে।
গত ১৬ জুন দুপুর ১২ টায় চট্টগ্রাম শহরে অক্সিজেনসেবা কার্যক্রম শুরু করে অক্সিজেন ফর লাইফ বাংলাদেশ। যাত্রা শুরু পর থেকে এ পর্যন্ত বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা নিয়েছেন কোভিড-নন কোভিডসহ প্রায় ৩৫ জন রোগী।
ডা. মহিউদ্দিন মাসুম এর উদ্যোগে আরাফাত রূপক, আনিস ওয়ারেসী, শিহাব সাগীর, রাকিব উদ্দিন রোগীদের জন্য জরুরি অক্সিজেনের চাহিদা মেটাতে দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন।
কিভাবে মিলবে বিনামূল্যে অক্সিজেন
সেবা পেতে ‘অক্সিজেন ফর লাইফ বাংলাদেশ’ এর ফেইসবুক গ্রুপ অথবা ফেইসবুক পেইজে যোগাযোগ করতে হবে। ডাক্তারের পরামর্শের ভিত্তিতে নির্ধারিত ফরম পূরণ করে জাতীয় পরিচয়পত্র কিংবা পাসপোর্টের ফটোকপি জমা দিয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিতে হবে। অক্সিজেন সিলিন্ডার সর্বোচ্চ ৪৮ ঘণ্টার জন্য সরবরাহ করা হবে। সেবাগ্রহীতাকে সিলিন্ডার নিজ দায়িত্বে ফেরত দিতে হবে।
কেন এই উদ্যোগ
সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ডা. মহিউদ্দিন মাসুম জানান, অক্সিজেন ফর লাইফের যাত্রা অনেকটা ঝোঁকের বশে। রমজান মাসের শুরুর দিকে অনুভব করি কোভিড পেশেন্টদের অক্সিজেন প্রয়োজনীয়তার কারণে নন-কোভিড অনেক রোগীদের কষ্ট বাড়বে। সেই রাতেই আলাপ করি বন্ধু আরাফাত রূপকের সাথে। প্রথম দিকে নাম দেয়া হয় ‘অক্সিজেন ফর লাইফ’। যা পরে ‘অক্সিজেন ফর লাইফ বাংলাদেশ’ করা হয়েছে। কাজ শুরু করার আরো ১ সপ্তাহ পর আমরা ফেসবুকে এই নামে গ্রুপ খুলি। এর মাঝে কথা হয় বন্ধু আনিস ওয়ারেসী, শিহাব সাগীর, আদর ইউসুফ, এপিএম রিপন ভাই, ডা. শাহেদ, ডা. স্বর্ণা, ডা. হিমেল, আমের এর সাথে। এই উদ্যোগে অনেক মহৎ হৃদয়ের মানুষ যুক্ত হয়েছেন। যারা সাহায্য ও সহযোগিতার হাত প্রসারিত করেছেন।
যারা পাশে দাঁড়িয়েছেন
ডা. মহিউদ্দিন মাসুম জানান, প্রথম সিলিন্ডার কেনার জন্য ইন্সপেক্টর রুহুল আমিন সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। হাসান আকবর ভাই পাঁচটি ফুল সেট অক্সিজেন সিলিন্ডার ও তিনটি ফ্লো-মিটার লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগং মেট্রোপলিটন থেকে দিলেন। সুদূর দুবাই থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার আনার জন্য টাকা পাঠিয়ে আমাদের বহরে যুক্ত করেছেন দুটো সিলিন্ডার। এছাড়া শোভন বড়ুয়া ও সাজেদুর রহমানের দিয়েছেন প্রথম সিলিন্ডার। আর ঝড়-বৃষ্টি কিংবা প্রখর রোদ উপেক্ষা করে সিলিন্ডার আনা থেকে শুরু করে পৌঁছে দেয়ার কাজ করছেন রাকিব।
উপকারভোগীরা যা বললেন
সঙ্গীতশিল্পী নীলম সেন সুপ্রভাতকে বলেন, ‘হঠাৎ একদিন আমার বড় বোন অসুস্থ হয়ে পড়ে। তখন তার অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়। বাইরে কোথাও পাচ্ছিলাম না খুঁজে। তখন আমি ডা. মাসুমের সাথে যোগাযোগ করি। তিনি আমাকে আশস্ত করেন এবং তাদের সংগঠন অক্সিজেন ফর লাইফ বাংলাদেশ থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করেন। ৪৮ ঘণ্টা পর আরো একটা সিলিন্ডারের প্রয়োজন পড়ে। এটিও আমি ওই সংগঠন থেকে পেয়েছি বিনামূল্যে। যখনই আমি সেবা চেয়েছি তখনই তারা আমাকে সেবা দিয়েছেন। বর্তমানে করোনাকালীন সময়ে তাদের এই উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই। কারণ এই উদ্যোগের ফলে অনেক রোগীর প্রাণ বাঁচবে এবং বিপদ থেকে উদ্ধার হবে।’