বড় বিপাকে সৌরভ

0
108

 

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :

স্বার্থ সংঘাতের অভিযোগ উঠল এবার সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। যা নিয়ে আবার শুরু একপ্রস্থ আলোচনা। গত শনিবারই বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় জেএসডব্লিউ সিমেন্ট (জিন্দাল স্টিল ওয়ার্কস) এর টি শার্ট পড়ে নিজের ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট থেকে ছবি পোস্ট করলেন। কোম্পানির ব্র্যান্ড এমবাসডর হিসাবেই আবির্ভূত হলেন মহারাজ। প্রসঙ্গত, জেএসডব্লিউ গ্রুপের স্পোর্টস শাখা জিএমআর গ্রুপের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে আইপিএলের দিল্লি ক্যাপিটালস দলের মালিকানা স্বত্ব আদায় করেছে। সেই কোম্পানির হয়েই বোর্ড সভাপতি হিসাবে ব্যান্ড আম্বাসডর হতে পারেন কিনা, তা নিয়েই তারপরে প্রশ্ন ওঠে যায়।

সৌরভ অবশ্য নিজে স্বার্থ সংঘাতের অভিযোগ মানছেন না। বোর্ড সভাপতি হওয়ার আগে দিল্লি ক্যাপিটালস দলের মেন্টরের ভূমিকা পালন করেছেন তিনি। মহারাজ নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ খ-ন করতে গিয়ে সাফ জানিয়ে দেন, বোর্ড সভাপতি হিসেবে তার দায়িত্বের সঙ্গে এই কোম্পানির ব্র্যান্ড আম্বাসডর হওয়ায় কাজকর্মের কোনো সংঘাত ঘটবে না।

‘কীভাবে বোর্ডের কাজকর্মকে প্রভাবিত করতে পারব আমি? আমি জেএসডব্লিউ স্পোর্টসের ব্র্যান্ড আম্বাসডর নই। তাছাড়া সিমেন্ট কোম্পানি কিন্তু দিল্লি ক্যাপিটালসের স্পনসরও নয়। আমি ওদের ক্রিকেটীয় কাজকর্মের সঙ্গেও জড়িত নয়। সেটা হলে অবশ্যই কনফ্লিক্ট অফ ইন্টারেস্টের বিষয় হয়ে দাঁড়াত। এর মধ্যে আমি অন্তত কোনো স্বার্থ সংঘাতের ইস্যু দেখতে পাচ্ছি না।’ সানডে এক্সপ্রেসকে এমনটাই যুক্তি দিলেন সৌরভ।

বোর্ডের কনফ্লিক্ট অফ ইন্টারেস্ট বিষয়ে নিয়ম কানুন খুব পরিষ্কার। বিসিসিআইয়ের সংবিধানে উল্লেখ করা রয়েছে, যখন বোর্ড, আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি অথবা কোনও সদস্য এমন কোনো সংস্থার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়, যার কোনো অংশীদার, সহযোগী সংস্থা, আত্মীয়, অথবা ঘনিষ্ট এসোসিয়েটস এর স্বার্থ জড়িত থাকে, সেক্ষেত্রে তা স্বার্থ সংঘাত বলে বিবেচিত হবে।

প্রসঙ্গত, জেএসডব্লিউয়ের ওয়েবসাইট অনুযায়ী, জেএসডব্লিউ জিএমআর ক্রিকেট প্রাইভেট লিমিটেড সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর পার্থ জিন্দাল দিল্লি আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির ম্যানেজমেন্টের অংশ। আইপিএলের নিলাম তো বটেই দিল্লি ক্যাপিটালসের ম্যাচে ডাগ আউটেও নিয়মিত দেখা যায় পার্থ জিন্দালকে। তাকে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের তরফে পুরো স্বার্থ সাংঘাতের ইস্যু নিয়ে টেক্সট মেসেজ করা হয়। তবে কোনো জবাব আসেনি।

গত বছর অক্টোবরে বিসিইসিআই সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার আগে সৌরভ জানিয়েছিলেন, তিনি দিল্লি ক্যাপিটালসের মেন্টর পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন। যদিও তিনি বিভিন্ন ক্রিকেট সংস্থার হয়ে বিজ্ঞাপনের কাজ চালিয়ে যান। বর্তমানে তিনি অনলাইন ফ্যান্টাসি ক্রিকেট লিগ মাই১১সার্কেল এর হয়ে এন্ডোর্সমেন্টের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

এর আগে একাধিকবার সৌরভ স্বার্থ সংঘাতের ইস্যু নিয়ে মুখ খুলেছেন। তিনি জানিয়েছিলেন, স্বার্থ সংঘাতের ইস্যু-র জন্য দেশের ক্রিকেট প্রাক্তন ক্রিকেটারদের সার্ভিস পাবে না।

খবর : ইন্ডিয়ানএক্সপ্রেস’র।