উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারণা

0
112

নিজস্ব প্রতিনিধ, রাউজান :

উপজেলার ডাবুয়া ইউনিয়নের ডাবুয়া জগ্ননাথ মিষ্টি বিতানে দোকানের মালিক রাজু চৌধুরীর কাছ থেকে প্রতারণা করে ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগের নাম দিয়ে ০১৯১০-৫৪১৯৩৯ মোবাইল নম্বর থেকে ফোন করে তার দোকান বন্ধ করে দেবে ২ লাখ টাকা জরিমানা দিতে হবে, ৬ মাসের জেল দেওয়া হবে বলে হুমকি দেয় গত ৪ জুলাই শনিবার দুপুর ১ টা ১০ মিনিটের সময়ে। ৪০ হাজার টাকা ০১৯১০-৫৪১৯৩৯ নম্বরে বিকাশ করে পাঠালে রক্ষা পাবে বলে প্রতারক ফোন করে। মিষ্টির দোকানের মালিক রাজু চৌধুরী ভয়ে ০১৯১০-৫৪১৯৩৯ নম্বরের বিকাশে পাঠিয়ে দেয় । ঘটনার বিবরণে  জানা গেছে, প্রতারক চক্র  ০১৯১০-৫৪১৯৩৯ নম্বর থেকে ফোন করে ডাবুয়া ইউনিয়নের দফাদার সাহালম চৌকিদার সুভাষ চৌধুরীকে । প্রতারক চক্র  নিজেকে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ পরিচয় দিয়ে জগ্ননাথ হাটের মিষ্টির দোকানের ব্যবসায়ী রাজু চৌধুরীর ফোন নম্বর দিতে বলেন।

দফাদার ও চৌকিদার জগ্ননাথ হাটের মিষ্টির দোকানে গিয়ে রাজু চৌধুরীর সাথে প্রতারক চক্রের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলিয়ে দেয়।   পরে প্রতারক চক্রের ফাঁদে পড়ে ব্যবসায়ী রাজু চৌধুরী  ০১৯১০-৫৪১৯৩৯ বিকাশ নম্বরে ৪০ হাজার টাকা দিয়ে দেয় । এ ঘটনার পর ব্যবসায়ী রাজু চৌধুরী বিষয়টি  চেয়ারম্যান আবদুর রহমান চৌধুরীকে অবহিত করেন। স্থানীয় চেয়ারম্যান বিষয়টি রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগকে অবহিত করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ বিষয়টি শুনে ডাবুয়া ইউনিয়নের দফাদার শাহ আলম, চৌকিদার সুভাষ চৌধুরী ও ব্যবসায়ী রাজু চৌধুরীকে ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা ঘটনার কথা স্বীকার করেন । এ ব্যাপারে ব্যবসায়ী রাজু চৌধুরী রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগকে লিখিতভাবে অভিযোগ করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, আমার নাম দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে ব্যবসায়ীর কাছ থেকে টাকা আদায় করার ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে।