কিছুদিন আগেই বান্ধবীর সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়েছিলেন সুশান্ত

0
163

সুপ্রভাত ডেস্ক :
সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুতে নয়া মোড়! দিন কয়েক ধরেই বান্ধবীর সঙ্গে ঝামেলা চলছিল অভিনেতার। নভেম্বরেই বিয়ে করার কথা ছিল তার সঙ্গে। এমনকী লকডাউনের সময়ও বান্ধবীর সঙ্গেই থাকছিলেন সুশান্ত। কিন্তু পরে মনোমালিন্য হওয়ায় অন্যত্র চলে যান। ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, ঝগড়া মেটানোর জন্য ফোন করা হলেও উত্তর দিচ্ছিলেন না অভিনেতার বান্ধবী। এমনকি, সুশান্তের ব্যবহারে অদ্ভূত পরিবর্তন লক্ষ্য করেছিলেন অভিনেতার দিদিও। তাই দিন দুয়েক আগেই সটান ভাইয়ের বান্দ্রার ফ্ল্যাটে চলে যান তিনি। তাহলে সুশান্তের আত্মহত্যার নেপথ্যের কারণ কি এটাই? ক্রমশ জটিল হচ্ছে রহস্য।
মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চের কাছে রয়েছে সুশান্তের ২টি মোবাইল এবং ল্যাপটপ। সেই সূত্র ধরেই কি জানতে পারা গেল বান্ধবীর সঙ্গে ঝামেলার কথা? উঠছে প্রশ্ন! গত ৬ মাস ধরেই ডিপ্রেশনে ভুগছিলেন। জুহুর এক হাসপাতালে নিয়মিত দেখাতেও যেতেন। তবে উল্লেখযোগ্য বিষয়, ঘনিষ্ঠ সূত্র বলছে, বান্ধবীর সঙ্গে মনোমালিন্যের কারণেই নাকি শেষের দিকে ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন সুশান্ত। তার ব্যবহারে বেশ পরিবর্তনও লক্ষ্য করেছিলেন বন্ধুরা। আত্মহত্যার আগের দিন গভীর রাতেও বেশ কয়েকবার বান্ধবীকে ফোন করেন। কিন্তু উত্তর মেলেনি অপর প্রান্ত থেকে। এরপর বান্ধবী এবং তার কমন ফ্রেন্ড মহেশ শেট্টিকে ফোন করেন সুশান্ত সিং রাজপুত। তিনিও অত রাতে ফোন তোলেননি। মৃত্যুর আগে মাদক সেবনও করেননি, বলছে অভিনেতার ময়নাতদন্তের রিপোর্ট। অতএব, ঠান্ডা মাথায় পৃথিবী থেকে বিদায় নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।
তবে চাঞ্চল্যকর বিষয়, লকডাউনে নাকি বান্ধবীর সঙ্গেই থাকছিলেন সুশান্ত। তবে কী এমন ঘটল যে তাদের মধ্যে দূরত্ব এতটা বাড়লো? নভেম্বরেই তো সাত পাকে বাঁধা পড়তেন তারা! ‘নভেম্বরেই বিয়ের কথা ছিল সুশান্তের। খানিক হলেও তোড়জোড় তো চলছিলই। বাড়ির লোকেরাও প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সেই বুঝে।’, গতকালই বিস্ফোরক এই তথ্য দিয়েছিলেন অভিনেতার তুতো ভাই।
এবার প্রশ্ন, সেই বান্ধবীটিই বা কে? সেকথা অবশ্য খোলসা করতে চাননি তাদের কেউই! গত ৬ মাস ধরেই বলিপাড়ায় গুঞ্জন সুশান্ত নাকি বঙ্গললনা রিয়া চক্রবর্তীর প্রেমে পড়েছেন। লিভ-ইন করছিলেন বলেও শোনা যায়। যদিও সুশান্ত কিংবা রিয়ার কেউই তাদের সম্পর্কের কথা অফিশিয়ালি ঘোষণা করেননি কখনও। তাহলে কি তারই ইঙ্গিত দিতে চেয়েছিলেন অভিনেতার তুতো ভাই? কিন্তু অবাক করার মতো ব্যাপার, সুশান্তের মৃত্যুর পরও সোশ্যাল মাধ্যমে স্বাভাবিকভাবে সক্রিয় থেকেও কোনওরকম মন্তব্য করেননি রিয়া। উপরন্তু সোশ্যাল মিডিয়াতে শোকবার্তাও জ্ঞাপন করেননি। অন্যদিকে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, মহেশ ভাট নাকি রিয়াকে এই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার পরামর্শ দিয়েছিলেন! সুশান্তের মৃত্যুর নেপথ্যে রহস্য ক্রমাগত জটিল হচ্ছে।
খবর : সংবাদপ্রতিদিন’র।