করোনাভাইরাস মোকাবেলা কমিটি থেকে বিএমএ নেতা ফয়সাল বাদ

0
157

নিজস্ব প্রতিবেদক :
গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিক মালিকদের চিকিৎসা না দেওয়ার সিদ্ধান্তের পেছনে শক্তি ও মদদ যোগানোর অভিযোগে বিভাগীয় করোনা মোকাবেলা কমিটি থেকে বাদ দেয়া হয়েছে বিএমএ (বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন) সেক্রেটারি ফয়সাল ইকবাল চৌধুরীকে।
চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে গঠিত সার্ভেইল্যান্স টিম ২০টি বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিককে নোটিশ ইস্যু করেছে। বিতর্ক এড়াতে কমিটি থেকে বিএমএ নেতা ফয়সাল ইকবাল চৌধুরীকে বাদ দেয়া হয়েছে বলে জানা যায়।
সার্ভেইল্যান্স টিমের আহ্বায়ক চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, ‘চট্টগ্রামে চিকিৎসা নিয়ে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, এটা অনাকাঙ্খিত। আমাদের টিম গঠন করা হয়েছে মানুষ যেন চিকিৎসা পায়, সেটা নিশ্চিত করার জন্য। আমরা এরই মধ্যে ২০টি হাসপাতালকে নোটিশ ইস্যু করেছি। টিম পুনর্গঠন করা হয়েছে। আমরা হাসপাতালগুলো সরেজমিনে পরিদর্শনে যাব। মানুষকে বাঁচাতে আমাদের কঠোর অবস্থান অবশ্যই আছে। তবে আমরা কাউকে জোর করতে চাই না। জোর করে চিকিৎসা আদায় করা যায় না। আমরা চাই, সামর্থ্যরে মধ্যে যতটুকু আছে, ততটুকু দিক। করোনায় আক্রান্ত হোক কিংবা না হোক, চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার থেকে তো কাউকে বঞ্চিত করা যাবে না।’
টিম পুনর্গঠনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘টিমে বিএমএ’র সেক্রেটারিকে রাখা হয়েছিল। এখন উনার পরিবর্তে বিএমএ’র সভাপতিকে রাখা হয়েছে। বাকি সবাই অপরিবর্তিত আছেন। এ টিমে কোনো ব্যক্তিকে নয়, পদকে রাখা হয়েছে।’
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর থেকেই চট্টগ্রামে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলো চিকিৎসা প্রদানে গড়িমসি শুরু করে। গত ৪ এপ্রিল চট্টগ্রামে এক সভায় কোভিড-১৯ চিকিৎসায় চট্টগ্রামের ১২টি বেসরকারি হাসপাতালকে আইসিইউ ও ভেন্টিলেটরসহ ব্যবহারের সুবিধাসহ ব্যবহারের জন্য নির্ধারণ করেছিল করোনাভাইরাস মোকাবেলায় গঠিত বিভাগীয় কমিটি। হাসপাতালগুলো হচ্ছে পার্কভিউ হাসপাতাল, মেডিকেল সেন্টার, ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল, সার্জিস্কোপ হাসপাতাল (ইউনিট-২), ডেল্টা হাসপাতাল, সিএসটিসি হাসপাতাল, সিএসসিআর, ন্যাশনাল হাসপাতাল, এশিয়ান হাসপাতাল, রয়েল হাসপাতাল, মেট্রোপলিটন হাসপাতাল এবং ম্যাক্স হসপিটাল। চার পর্যায়ে তিনটি করে হাসপাতাল ক্রমানুসারে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত হয়েছিল ওই সভায়।