শিল্পকলা একাডেমির কার্যকরী কমিটি নির্বাচন

৫২ জন মনোনয়নপত্র জমা দিলেন ৪ পদে

নিজস্ব প্রতিবেদক

জেলা শিল্পকলার একাডেমি, চট্টগ্রাম কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন : ২০১৮ এর মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ সময় ছিল গতকাল। তফসিল অনুযায়ী গত ১ জুলাই থেকে মনোয়নপত্র সংগ্রহ শুরু হয়ে তা শেষ হয় গতকাল। এতে সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, যুগ্ম সম্পাদক ও নির্বাহী সদস্যপদের জন্য ৫২জনের মনোয়নপত্র জমা পড়েছে ।
গঠনতন্ত্র ধারা-৯ মোতাবেক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. হাবিবুর রহমান এই নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করছেন।
নির্বাচনে সহ-সভাপতি পদে ৮ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ৩ জন, যুগ্ম-সম্পাদক পদে ৯ জন এবং কার্যকরী সদস্যপদে ৩২ জনসহ মোট ৫২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। প্রার্থীরা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসার মো. মুনীর হোসাইন খানের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। এ সময় চান্দগাঁও থানা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ কামরুল আলম ও ডবলমুরিং থানা নির্বাচন অফিসার পল্লবী চাকমা, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদা আজাদ ও জহুর আহমদ চৌধুরী ফাউন্ডেশনের পরিচালক শরফুদ্দিন চৌধুরী রাজু উপসি’ত ছিলেন।
আগামী ৯ জুলাই রিটার্নিং অফিসার মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই করবেন। ১২ জুলাই প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ২১ জুলাই নির্বাচন। ঐদিন সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলবে। নির্বাচনে সভাপতি পদে ২ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ১ জন, যুগ্ম-সম্পাদক পদে ২ জন ও কার্যকরী সদস্য পদে ৫ জন নির্বাচিত হবেন। সভাপতি পদে জেলা প্রশাসক, কোষাধ্যক্ষ পদে জেলা কালচারাল অফিসার দায়িত্বে থাকবেন। এ দু’টো পদে নির্বাচন হবে না। সহ-সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন : রিজোয়ান রাজন, মউদুদুল আলম, জাহাঙ্গীর কবির, এসকে এস মাহমুদ (আলোক মাহমুদ), রনজিৎ রক্ষিত, তাপস শেখর, সাহাবউদ্দিন আহমদ ও স্বপন কুমার দাশ, ঁ ১১ পৃষ্ঠার ৫ম কলাম
ঁ শেষ পৃষ্ঠার পর সাধারণ সম্পাদক পদে সাইফুল আলম বাবু, মো. সরোয়ার আমিন ও এবিএম রাশেদুল হাসান (রাশেদ হাসান), যুগ্ম-সম্পাদক পদে মো. জামশেদ উদ্দীন, এসএম সাঈদ সুমন, মুহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম চৌধুরী, মুহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন, মো. মঈন উদ্দিন কোহেল, কমল দাশ, প্রণব কুমার চৌধুরী, আলাউদ্দিন তাহের ও মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম এবং কার্যকরী সদস্য পদে রনজিত কুমার শীল, দেবাশীষ রুদ্র, বাপ্পা চৌধুরী, ইনতেখার আলম মান্না, মো. ইকবাল হোসেন, একেএম জয়নাল আবেদীন, মোহাম্মদ আলী, মোস্তফা কামাল যাত্রা, মো. আবদুল মতিন (শাহীন মাহমুদ), উত্তম কুমার বিশ্বাস, মুহাম্মদ সাহিদ এমরান, সাইদুল ইসলাম, এমএ আজাদ ফিরোজী (শাওন পান’), জসিম উদ্দিন মিঠুন, নুবুয়াত আরা সিদ্দিকা রকি, হিল্লোল রায়, সামশুল হায়দার তুষার, আ ফ ম মোদাচ্ছের আলী, মো. শহিদুল করিম চৌধুরী নিন্টু, মোহাম্মদ লিপটন, দীপেন কান্তি চৌধুরী, শাখাওয়াত উল্লাহ চৌধুরী সৌরভ, রুবেল দাশ প্রিন্স, প্রবীর পাল, কামরুল আযম চৌধুরী টিপু, জালাল উদ্দিন সাগর, জাহেদ হোসেন, নিশাত হাসিনা শিরীন, অঞ্চল কুমার চৌধুরী, কঙ্কন দাশ, সাজ্জাদ বিন খালেদ সুমন ও দিদারুল ইসলাম।
গঠনতন্ত্র অনুসারে কার্যনির্বাহীর কমিটির নির্বাচন হওয়ার পর নির্বাহী কমিটি গঠন হবে ১৫ জন সদস্য নিয়ে। এদের মধ্যে সভাপতি ১ জন, সহ-সভাপতি ২ জন, সাধারণ সম্পাদক ১ জন, যুগ্ম সম্পাদক ২ জন, কোষাধ্যক্ষ ১ জন ও নির্বাহী সদস্য ৮ জনের থাকার বিধান রয়েছে।
এদিকে নির্বাচন ও ভোটগ্রহণ নিয়ে সদস্য, প্রার্থীরা অনেকে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। সংস্কৃতিজন ও মুক্তিযোদ্ধা দেওয়ান মাকসুুদ বলেন, সদস্যপদ প্রদান করা হয়েছে ২০১৬ সালের ৩০ মে। অথচ এখনো কোনো পরিচিত সভা কিংবা সাধারণ সভা হয়নি। এখন অন্তত নির্বাচনের আগে তা হওয়া উচিত। এদিকে আরেক সদস্য প্রার্থী মো. ইকবাল হোসেন বলেন, নির্বাচনের দিন ভোটগ্রহণের সময় ৯-৩টার পরিবর্তে সকাল ৮টা থেকে ৫টা পর্যন্ত করা উচিত। নির্বাচনের দিন সরকারি ছুটি থাকলেও বেসরকারি অনেক অফিস খোলা। তাই চাকরিজীবিদের কথা ভেবে এই সময় পরিবর্তন করা দরকার।
পদাধিকার বলে কার্যনির্বাহী কমিটিতে জেলা প্রশাসক সভাপতি ও কালচারার অফিসার কোষাধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া সরাসরি সদস্যদের ভোটে নির্বাচিত হবেন সহসভাপতি পদে ২ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ১জন, যুগ্ম সম্পাদক পদে ২ জন ও পাঁচজন নির্বাহী সদস্য পদে ভোটের মাধ্যমে নিবাচিত হবেন। বাকি তিনজন সদস্য জেলা প্রশাসক কর্তৃক মনোনীত হবেন।
প্রতিষ্ঠার প্রায় চল্লিশ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বহুল প্রত্যাশিত কার্যনির্বাহী কমিটির এই নির্বাচন। ১৬ বছরের অ্যাডহক কমিটি বিলীন হয়ে অবশেষে কার্যনির্বাহী কমিটির আওতায় আসছে জেলা শিল্পকলা একাডেমি, চট্টগ্রাম।