ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট মেরামত শুরু করেছে চসিক

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাম্প্রতিক সময়ে অতি বর্ষণে ক্ষতিগ্রস্ত নগরীর রাস্তাঘাট মেরামত কাজ গতকাল মঙ্গলবার থেকে শুরু করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। তবে আবারো বৃষ্টি হওয়ার কারণে পুরোদমে প্যাচওয়ার্ক (ইট-বালির মিশ্রণ) শুরু করতে পারেনি চসিক।
চসিক সূত্রে জানা গেছে, সিটি করপোরেশনের ৯টি ডিভিশনের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন রাস্তার বড় বড় গর্তগুলো প্রাথমিকভাবে ইট দিয়ে ভরাট করে চলাচলের উপযোগী করে তোলা হচ্ছে।
নির্বাহী প্রকৌশলী সুদীপ বসাক বলেন, ‘আমরা এখনো ক্ষতিগ্রস্ত সড়কে অ্যাসফল্ট প্ল্যান্ট দিয়ে কার্পেটিংয়ের কাজ শুরু করতে পারিনি। তবে বড় বড় গর্তগুলো ইট দিয়ে ভরাট করে চলাচলের উপযোগী করে তোলার চেষ্টা করছি।নিউ মার্কেট, দেওয়ান হাট, সিমেন্ট ক্রসিং, ফকির হাট, ডিটি রোড, ব্যাপারী পাড়াসহ অনেক রাস্তায় গর্ত ভরাট করা হয়েছে।’
এর আগে গত সোমবার চসিক প্রকৌশলীদের সাথে এক বৈঠকে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট সংস্কারের নির্দেশ দেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। বৈঠকে মেয়র অতি বর্ষণের ফলে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে রাস্তার ক্ষয়ক্ষতি এবং করণীয় সম্পর্কে প্রকৌশলীদের নিকট জানতে চান। প্রধান প্রকৌশলী ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন তুলে ধরেন।
এ ব্যাপারে চসিকের প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ সুপ্রভাতকে বলেন, ‘গত কয়েক দিনের বর্ষণে নগরীর প্রায় ২০ শতাংশ রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এয়ারপোর্ট রোড থেকে গোসাইলডাঙ্গা, আরাকান রোড, আমবাগান, চকবাজারসহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তাঘাট বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা আজ (মঙ্গলবার) ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তার মেরামত শুরু করেছি। তবে বৃষ্টি হওয়ার কারণে পুরোদমে প্যাচওয়ার্ক শুরু করতে পারিনি। বৃষ্টিতে অ্যাসফল্ট প্ল্যান্ট দিয়ে কাজ করা যায় না। বৃষ্টি আর না হলে এক সপ্তাহের মধ্যে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা মেরামত করতে পারবো। আর বৃষ্টি হলে আমরা শুধুমাত্র ইট-বালি দিয়ে গর্ত ভরাটের কাজ করবো।’