ত্রিভুজ প্রেম

দ্বিতীয় প্রেমিক দিয়ে প্রথম প্রেমিককে ছুরিকাঘাত

মোহাম্মদ রফিক

উম্মে আইমন শিন। বয়স ২০ বছর। চলাফেরায় আভিজাত্য। ধনকুবের মেয়ে বটে। পরিবারের সঙ্গে থাকেন নগরের বাদশা মিয়া রোডের একটি দামি ফ্ল্যাটে। তার বাবার নাম সেলিম চৌধুরী।
উম্মে আইমন এখনো কলেজের গন্ডি পেরোয়নি। এক সময় আইমান জিহাদ (২১) নামে এক তরুণের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন আইমন। জিহাদের গ্রামের বাড়ি আনোয়ারা উপজেলার চাতুরি এলাকায়। পরিবারের সঙ্গে থাকেন নগরের কলেজ রোড এলাকায়।
গত ১৭ ফেব্রুয়ারি নগরের ষোলশহরে তল্লাশি করতে সংকেত দিলে পুলিশের উপর গুলি ছোড়ে দুর্বৃত্তরা। এতে একজন পুলিশ সদস্য আহত হন। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আইমান জিহাদসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ মামলায় কারাবন্দি হন জিহাদ। এর মধ্যে শিনের সঙ্গে সম্পর্কে ফাটল ধরে জিহাদের। সম্প্রতি, আনাস আহমেদ রুবাব নামে আরেক তরুণের সঙ্গে প্রেমে জড়িয়ে পড়ে শিন। রুবারের গ্রামের বাড়ি লোহাগাড়া উপজেলার চেয়ারম্যান বাড়ি এলাকায়। পরিবারের সঙ্গে তিনি থাকেন নগরের জাকির হোসেন রোড লায়ন্স চক্ষু হসপিটাল এলাকায়।
জেল থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে শিন-রুবারের খবরটি জেনে যায় জিহাদ। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কিছুদিন চলতে থাকে বাকবিতণ্ডা। জিহাদকে এড়িয়ে চলতে থাকেন শিন। এক পর্যায়ে জিহাদকে ‘শিক্ষা’ দেওয়ার পরিকল্পনা করেন শিন। পরিকল্পনা মত গত ১৮ জুন বিকাল চারটায় নগরের চট্টেশ্বরী মোড় এলাকার ‘মুনো ক্যাফে রেস্টুরেন্ট’ জিহাদকে ডেকে আনেন শিন। সেখানে আগে থেকে উপসি’ত ছিলেন নতুন প্রেমিক রুবাব, উম্মে আইমনের বান্ধবী নিশাত জেরিন, মাইশা জেরিন, সাঈদ ইমতিয়াজ ও সাকিব সেলিম।
কথামতো ওই রেস্টুরেন্টে বন্ধু ওয়াসেফ জামানকে নিয়ে হাজির হন আইমান জিহাদ। এসময় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নিজের ভ্যানিটি ব্যাগ থেকে একটি টিপ ছুরি নতুন প্রেমিক আনাস আহমেদ রুবাবকে বের করে দেন শিন। পরে জিহাদের শরীরে উপর্যুপরি ছুরি চালিয়ে দেন আনাস আহমেদ। এসময় তাকে রক্ষা করতে এলে জিহাদের বন্ধু ওয়াসেফ জামানকেও ছুরিকাঘাত করেন উম্মে আইমনের প্রেমিক আনাস। এসব ঘটনার পুরো দৃশ্যটি ধরা পড়ে রেস্টেরেন্টে লাগানো সিসি ক্যামেরায়।
গুরুতর আহত অবস’ায় গত সোমবার বিকেলে আইমান জিহাদকে ভর্তি করা হয় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়ালিটি বিভাগে।
এ ঘটনায় গতকাল বিকালে চকবাজার থানায় আনাস আহমেদ, উম্মে আইমন শিনসহ ছয়জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন জিহাদের চাচা হারুনুর রশিদ। পুলিশ উম্মে আইমন শিন’কে গ্রেফতার করেছে। ঘটনার দায় স্বীকার করে গতকাল সন্ধ্যায় মহানগর হাকিম আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন উম্মে আইমন শিন।
চকবাজার থনার ওসি আবুল কালাম জানান, মামলার আলামত হিসেবে মুনো ক্যাফে রেস্টুরেন্ট থেকে ফুটেজ জব্দ করা হয়েছে। জিহাদকে ছুরিকাঘাতকারী উম্মে আইমন শিন’র প্রেমিক আনাস আহমেদ রুবাবসহ অন্যান্য আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন ওসি কালাম।