আগ্রাবাদ এক্সেস-পোর্ট কানেকটিং রোড

যানজটে মেয়রের ক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক
DSC_2700

নগরীর আগ্রাবাদ এক্সেস রোড ও পোর্ট কানেকটিং রোডে উন্নয়ন কাজ চলাকালীন অবৈধ পার্কিংয়ের কারণে সৃষ্ট যানজটের জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। এই প্রসঙ্গে তিনি ট্রাফিক প্রশাসনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান।
গতকাল বুধবার দুপুরে এ দুটি সড়কে চলমান ১৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনকালে মেয়র এ কথা বলেন।
আগামী ২ বছরের মধ্যে নগরের সকল সড়কসমূহে শতভাগ কার্পেটিং বাস্তবায়ন করা হবে জানিয়ে আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘চট্টগ্রাম বন্দরের পণ্য পরিবহনে নিমতলা পোর্ট কানেকটিং রোড এবং আগ্রাবাদ এক্সেস রোড ঁ ১১ পৃষ্ঠার ৫ম কলাম
গুরুত্বপূর্ণ। এই সড়ক দিয়েই বন্দর থেকে পণ্য বা কন্টেইনারবাহী পরিবহন ঢাকাসহ দেশের নানা প্রান্তে যাতায়াত করে। দীর্ঘদিন ধরে এই সড়কের বেহাল অবস’ার কারণে বন্দরের পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদেরকে দুর্ভোগ এবং হয়রানি পোহাতে হচ্ছে। ছয় লেন বিশিষ্ট পোর্ট কানেকটিং রোড এবং আগ্রাবাদ এক্সেস রোড উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন হলে বন্দরের পণ্য পরিবহনে গতিশীলতা ফিরে আসবে।’
চসিকের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম জানান, প্রকল্পের আওতায় দুই পর্যায়ে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নিমতলা পোর্ট কানেকটিং থেকে বড়পুল, বড়পুল থেকে নয়াবাজার পর্যন্ত এবং আগ্রাবাদ বাদামতলী থেকে বড়পুল নয়াবাজার পর্যন্ত ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে এ উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়িত হচ্ছে। জাইকার অর্থায়নে প্রকল্পের কাজ গত জানুয়ারি থেকে থেকে শুরু হয়। ২০১৯ সালের মে পর্যন্ত এ প্রকল্পের মেয়াদকাল।
পরিদর্শনের সময় মেয়রের সাথে চসিক কাউন্সিলর এইচএম সোহেল, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমদ, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম প্রমুখ উপসি’ত ছিলেন।
টানা বর্ষণে ক্ষতিগ্রস্ত বিন্নাঘাস প্রদর্শনী প্লট
গত তিন দিনের অবিরাম টানা বর্ষণে নগরীর বাটালি হিল ও মিঠা পাহাড়ের কিছু অংশ ধসে পড়ে পাহাড়ের পাদদেশে অবসি’ত চসিকের বিন্নাঘাস প্রদর্শনী প্লটের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন গতকাল বুধবার দুপুরে এ ক্ষতিগ্রস্ত প্রদর্শনী প্লট পরিদর্শন করেন। মেয়র বিন্না ঘাস প্রদর্শনী প্লটে রোপণ করা চারাগুলোর বর্তমান অবস’া পর্যবেক্ষণ করেন।