জানতাম পুরো দেশ আমাদের জন্য অপেক্ষা করছে : সালমা

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক

কোনো সিরিজ বা টুর্নামেন্টে খেলে সালমা খাতুন, রুমানা আহমেদ, জাহানারা আলমদের ফেরা হয় অনেকটা নিভৃতে। ফুলের তোড়া নিয়ে তাদের জন্য অপেক্ষার চিত্রটা বিরল। মহিলা এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতকে হারানোর পর থেকে সালমারা জানতেন, এবার ফেরাটা হবে অন্যরকম। এবার অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় থাকবে পুরো দেশ। খবর বিডিনিউজ।
ভারতের মেয়েদের হারিয়ে দেশকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম শিরোপা এনে দেওয়া সালমা-রুমানারা সোমবার ঢাকায় ফিরেন বিকালে। একই দিন ঢাকার একটি হোটেলে ছিল বিসিবির ইফতার। শিরোপাজয়ী মেয়েরা ফেরায় ইফতারের পর তাদের সংবর্ধনার আয়োজন করে বিসিবি।
বিমানবন্দরে নেমে সরাসরি হোটেলে চলে আসেন ক্রিকেটাররা। তারা তৈরি হয়ে বলরুমে আসার আগেই দলকে দুই কোটি টাকা আর্থিক পুরষ্কারের ঘোষণা দেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান। সালমা জানান, ফাইনালে জেতার পর এই সবই প্রত্যাশিত তাদের।
‘আমরা অনেক বড় একটি দলকে হারিয়ে এশিয়ার সেরা হয়েছি। আমরা জানতাম, পুরো বাংলাদেশ আমাদের জন্য অপেক্ষা করছে যে, আমরা কখন পৌঁছাব। দেশে পৌঁছানোর পর এই পর্যন্ত আসার পথে পেয়েছি অসংখ্য উপহার। অনেক আনন্দ লাগছে।’
সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিমসহ জাতীয় ক্রিকেট দলের অনেক সদস্য উপসি’ত ছিলেন বিসিবির আয়োজনে।
মেয়েদের ক্রিকেটের উন্নতির জন্য কি কি করা যায় দুই দিনের মধ্যে তার একটি প্রতিবেদন দিতে এনায়েত হোসেন সিরাজকে প্রধান করে একটি কমিটি করেছে বিসিবি। এই ব্যাপারে বিসিবির সিদ্ধান্তই মেনে নেবেন সালমারা। ‘যেহেতু আমরা ভালো একটা ফল করেছি, এখন বোর্ড চিন্তা করবে আমাদের জন্য কি করা যায়। তারাই চিন্তা করবেন আমাদের জন্য কি করা উচিত, কি করা উচিত নয়। আমাদের কিছু বলার নেই। সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড।’
মাঝে ১৪ মাস কোনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছিল না মেয়েদের। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে দেড় বছর খেলেনি কোনো টি- টোয়েন্টি। নিয়মিত খেলার সুযোগ পাওয়ার দাবি বরাবরই জানিয়ে আসছেন সালমা-রুমানারা।
সংবর্ধনা শেষে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন সালমা। বরাবরের নির্লিপ্ত অলরাউন্ডারকে দেখা গেল ফুরফুরে