বান্দরবানে পৃথক অভিযান

পিসিপি’র শীর্ষ নেতা, ভারতীয় নাগরিকসহ ৬ জন আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান

বান্দরবানের রুমায় জনসংহতি সমিতির সহযোগী সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) সভাপতিসহ ২ জনকে আটক করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।
জেএসএস ও স্থানীয়রা জানায়, আগামী ২০ মে রাঙামাটি জেলায় জনসংহতি সমিতির সহযোগী সংগঠন পিসিপি’র ২৩তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠানের জন্য জেলার রুমা উপজেলা সদর বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে সংগঠনের রশিদ দিয়ে চাঁদা সংগ্রহের সময় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের (পিসিপি) রুমা উপজেলা সভাপতিসহ ২ জনকে আটক করেছে। এরা হলেন- পিসিপি রুমা উপজেলা সভাপতি থুইনু মং (২৭)
এবং সাধারণ সম্পাদক উছাচিং মারমা (২৬)। আটকের পর তাদের নিরাপত্তা বাহিনীর হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।
জেএসএস রুমা উপজেলা সভাপতি লুই প্রু মারমা জানান, পিসিপি’র ২৩তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন এবং ১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামী ২০ মে। অনুষ্ঠানের জন্য স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে সংগঠনের রশিদ দিয়ে অর্থ সংগ্রহ করা হচ্ছে। এটিতো চাঁদাবাজি নয়। অনুষ্ঠানের জন্য আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ জাতীয় রাজনৈতিক সংগঠনগুলোও সংগ্রহ করে। কিন্তু এ অভিযোগে পিপিসি সভাপতি এবং সম্পাদককে আটক করা হয়েছে। তাদের এখনো ছেড়ে দেয়া হয়নি। আমরা অপেক্ষায় আছি। যদি না ছাড়ে তাহলে সাংগঠনিকভাবে প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা দেয়া হবে।
রুমা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ ডালিম মজুমদার জানান, পিপিপি’র দুজনকে আটকের খবর পেয়েছি। কিন্তু পুলিশের কাছে হস্তান্তর না করায় বলতে পারছি না কেন তাদের আটক করা হয়েছে।
এদিকে বান্দরবানের রুমায় দুজন ভারতীয় নাগরিকসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। এসময় তাদের কাছ থেকে নগদ টাকাসহ সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, জেলার রুমা উপজেলার বাজার এলাকা থেকে সেনাবাহিনীর টহল দলের সদস্যরা সন্দেহজনক ঘুরাঘুরির সময় ভারতীয় নাগরিকসহ ৩ জনকে আটক করেছে। এসময় তাদের কাছ থেকে ৪৫ হাজার টাকা, ৩টি মোবাইল ফোন সেট এবং ২৫টি মোবাইল চার্জার জব্দ করা হয়।
অপরদিকে গ্যালেঙ্গা ইউনিয়ন থেকে মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপ আরাকান লিভারেশন পার্টি (এএলপি) সোর্সের অভিযোগে আরো ১ জনকে আটক করে নিরাপত্তা বাহিনী। আটকরা হলেন- ভারতের মিজোরামের বাসিন্দার রতন ময় চাকম (১৮), প্রিয় বিকাশ চাকমা (১৯), রাঙামাটি বাসিন্দার পূর্ণ কুমার তংচঙ্গা (৩৬), এবং বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপ এএলপি সোর্স শৈহ্লামং (৩৮)। আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে নিরাপত্তাবাহিনী এদের পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সেনাবাহিনীর দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রুমা থানার সাব ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ ডালিম মজুমদার জানান, রুমা বাজার থেকে দুজন ভারতীয় নাগরিকসহ ৩ জন এবং গ্যালেঙ্গা থেকে একজনকে আটক করে সেনাবাহিনী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। এদের মধ্যে ভারতীয় দুজনের বিরুদ্ধে অবৈধ অনুপ্রবেশ আইনে এবং বাংলাদেশি দুজনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি আইনে পৃথক দুটি মামলা বৃহস্পতিবার রুমা থানায় দায়ের করা হয়েছে ।