শিল্পকলায় বইমেলার আলোচনা সভা

চবিতে লোকসংস্কৃতি বিভাগ খোলার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সাবেক অধ্যাপক, একুশে পদকপ্রাপ্ত ড. মাহবুবুল হক বলেছেন, লোকসংস্কৃতি হাজার বছরের পুরনো। চট্টগ্রামের লোকসাহিত্য ও সংস্কৃতি তুলে নিয়ে আসতে আমাদের আরও কাজ করতে হবে। এজন্য প্রয়োজন একটি কেন্দ্র যেখান থেকে চট্টগ্রামের লোকসাহিত্য ও সংস্কৃতি সঠিকভাবে তুলে নিয়ে আসা ও সংরক্ষণের পাশাপাশি বিশাল কর্মকাণ্ড পরিচালিত হবে। বহু আগে থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি লোকসংস্কৃতি বিভাগ গড়ে তোলা প্রয়োজন। তিনি বলেন, এছাড়া চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবসর গ্রহণের আগে আমি লিখিতভাবে একটি প্রস্তাব দিয়েছিলাম বিশ্ববিদ্যালয়টিতে একটি লোকবিভাগ গড়ে তোলার জন্য। কিন’ সেই প্রস্তাব ঊর্ধ্বতন মহল থেকে কেন বাস্তবায়ন করেনি। তা জানা যায় নি। আজ আবার নতুন করে এ প্রস্তাব দিচ্ছি।
গতকাল বিকেলে শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত বই মেলার তৃতীয় দিনে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এদিকে চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে বাংলা একাডেমি আয়োজিত একক বইমেলার গতকাল তৃতীয় দিনে ছিল বাংলা একাডেমির সহ পরিচালক গবেষক আহমদ মমতাজ এর প্রবন্ধ ‘চট্টগ্রামের লোকসাহিত্য ও সংস্কৃতি’ শীর্ষক আলোচনা। অধ্যাপক ড. মাহাবুবুল হকের সভাপতিত্বে উক্ত আলোচনায় অংশ নেন অধ্যক্ষ শিমুল বড়-য়া, পুঁথি সংগ্রাহক ও গবেষক মুহাম্মদ ইসহাক চৌধুরী।
চট্টগ্রামের লোকগীতি নিয়ে গ্রন’ প্রকাশের উপর জোর দিয়ে ড. মাহাবুবুল হক বলেন, চট্টগ্রামের লোকমুখে যে ছড়া তা বেশ বৈশিষ্ট্যপূর্ণ। সেই সাথে চট্টগ্রামের লোকগীতিও বেশ সমৃদ্ধ। যাকে আমরা সরল ভাষায় বলে থাকি পালাগান। আর এই পালাগান বাংলাদেশের একেক অঞ্চলে একেক নামে পরিচিত। যেমন ময়মনসিংহ অঞ্চলে যেসব পালাগান সংগৃহীত আছে তার নাম দেয়া হয়েছে ময়মনসিংহ গীতিকা। আবার সিলেট অঞ্চলে যে সব পালাগান সংগৃহীত হয়েছে তাকে সিলেট গীতিকা বলে। তেমনি রংপুর অঞ্চলেরগুলোকে বলা হয়ে থাকে রংপুর গীতিকা। আমাদের চট্টগ্রাম অঞ্চলের বেশ অনেক পালা গান সংগৃহিত রয়েছে এসব একত্রিত করে যদি বাংলা একাডেমি চট্টগ্রাম গীতিকা নামে গ্রন’ প্রকাশ করতে পারে তাহলে তা বেশ গুরুত্ব পায়।
বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও প্রাবন্ধিক অধ্যক্ষ শিমুল বড়-য়া বলেন, চট্টগ্রামে চাটগাঁ ভাষার মধুরতা, মানুষের দৈহিক গঠন, সংস্কৃতি সবগুলো মিলে একটা স্বতন্ত্রবোধ আছে। এগুলোর সাথে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার একটি প্রভাব রয়েছে বলে জানান শিমুল বড়-য়া।
তিনি আরো বলেন, বাংলা সাহিত্যের দর্পণ হচ্ছে লোকসাহিত্য। লোকসাহিত্যের ওপর আমাদের ইতিহাস অনেকটা নির্ভর করে থাকে। আর অঞ্চলভিত্তিক লোকসংস্কৃতির পীঠস’ান হচ্ছে চট্টগ্রাম।
আজ
মেলায় প্রতিদিন বই প্রদর্শন ও বিক্রয়ের পাশাপাশি রয়েছে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শিল্পকলা একাডেমির আর্ট গ্যালারি ভবনের নিচ তলায় বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে শুরু হয় আলোচনা অনুষ্ঠান। আজ ২৫ এপ্রিল বিকেলে চট্টগ্রাম-মনীষা শীর্ষক প্রবন্ধ উপস’াপন করবেন অধ্যাপক গোলাম মুস্তাফা। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেবেন অধ্যাপক ড. মহীবুল আজীজ ও কবি সাংবাদিক এজাজ ইউসুফী।