সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার না করতে ট্রাম্পকে বোঝালেন ম্যাখোঁ

সুপ্রভাত বহির্বিশ্ব ডেস্ক

সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার না করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছেন বলে দাবি করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাখোঁ। সমপ্রতি ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছিলেন, সিরিয়া থেকে অচিরেই মার্কিন সেনাদের প্রত্যাহার করা হবে। তবে ম্যাখোঁ তাকে বুঝিয়েছেন, মার্কিন সেনারা যেনো আরও সময় ধরে সিরিয়ায় অবস’ান করে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে। খবর বাংলাট্রিবিউনের। ম্যাখোঁ বলেন, ‘দশদিন আগেই ট্রাম্প বলছিলেন যে, তিনি সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার করতে চান। তবে আমরা তাকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছি যে আরও কিছুদিন সেখানে মার্কিন সেনা থাকা উচিত।’
গত ৩০ মার্চ ট্রাম্প ঘোষণা দেন, সিরিয়ায় মোতায়েন করা মার্কিন সেনাদের ‘অচিরেই’ প্রত্যাহার করা হবে। ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা সিরিয়া থেকে অচিরেই চলে আসব। অন্যরা সেখানকার দায়িত্ব নিক। অচিরেই আমরা সেখান থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করব। মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ৭ ট্রিলিয়ন ডলার অপচয় করেছে।’
তবে এরপর শনিবার সিরিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে রাসায়নিক হামলার অভিযোগ এনে দেশটির সরকারি স’াপনায় যৌথ হামলা চালায় যু্ক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স। ম্যাখোঁর দাবি, তিনি ট্রাম্পকে বুঝিয়েছেন যেন সিরিয়ায় সীমিত আকারে হামলা চালানো হয়। সিরিয়ায় হামলার আগে বেশ কয়েকবার কথা বলেছেন ট্রাম্প ও ম্যাখোঁ। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারাহ স্যান্ডার্স বলেছেন, ‘মার্কিন অভিযান এখনও পাল্টায়নি। ট্রাম্প এখনও চান সেনারা ফিরে আসুক।’ তবে যুক্তরাষ্ট্র আইএসকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করেই ফিরে আসবে বলেও জানান তিনি।
পূর্ব সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের দুই হাজারের বেশি সামরিক ব্যক্তিত্ব মোতায়েন রয়েছে। তারা আইএসবিরোধী লড়াইয়ে সিরিয়ার আসাদবিরোধী বিদ্রোহীদের সঙ্গে কাজ করছে। শুক্রবার হামলার ঘোষণার সময় ট্রাম্প বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ায় এমন পরিসি’তি চায় না। কোনও অবস’াতেই না।

শুক্রবার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত শহরে রাসায়নিক হামলার অভিযোগ তুলে সিরিয়ার তিনটি স’াপনা লক্ষ্য করে যৌথ হামলা শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা।
ম্যাখোঁ দাবি করেছেন, পশ্চিমা এই জোটের হামলা চালানো সম্পূর্ণ বৈধতা ছিল। এসময় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমিরে পুতিনের সমালোচনা করে বলেন, তিনি সিরিয়াকে অবৈধকাজে সহায়তা করছেন।