প্রবর্তক পাহাড়

রিটেনিং দেয়ালের আড়ালে কাটা হচ্ছে পাহাড়

পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণের অনুমোদন দেওয়া হয়নি : সিডিএ রিটেনিং দেয়ালের ডিজাইন করেছি, পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণের কথা ডিজাইনে নেই: প্রফেসর মোজাম্মেল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক
probortok-hill-cutting-hela

ঐতিহ্যের পাহাড় প্রবর্তক। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ইসকন মন্দির ও উল্লেখযোগ্য স’াপনাও রয়েছে এই পাহাড়ের চূড়ায়। কিন’ এই পাহাড়ের চারদিকে গড়ে উঠছে ইট পাথরের জঞ্জাল। প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ১৬ তলার বাণিজ্যিক স’াপনা। এবার পাহাড় রক্ষায় রিটেনিং দেয়াল নির্মাণের আড়ালে পাহাড় কেটে নির্মাণ করা হচ্ছে ২০ ফুট চওড়া রাস্তা।
তবে রাস্তা নির্মাণের কথা অস্বীকার করে প্রবর্তক সংঘের সাধারণ সম্পাদক তিনকড়ি চক্রবর্তী বলেন, ‘ওখানে তো রাস্তা নির্মাণের কথা নয়। রিটেনিং দেয়াল নির্মাণের কাজ চলছে।’
গতকাল সকালে পাঁচলাইশ
থানাধীন রুপনগর কমিউনিটি সেন্টারের বিপরীত পাশে (প্রবর্তক পাহাড়ের উত্তর-পশ্চিম কর্নার) গিয়ে দেখা যায়, কয়েক বছর আগে বর্ষা মৌসুমে ভেঙ্গে পড়া স’ানে সীমানা দেয়াল নির্মাণের কাজ চলছে। কিন’ সীমানা দেয়াল নির্মাণের পর পাহাড়ের ভেতরের দিকে কাটা হচ্ছে। আর খাড়া পাহাড়ের মাটি ভেঙ্গে পড়তে পারে, এজন্য পাহাড়ের গা ঘেঁষে দেয়া হয়েছে বালির বস্তার দেয়াল। পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে লম্বালম্বিভাবে সীমানা দেয়াল নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ। এখন চলছে পাহাড়ের ভেতরের দিকে কাটার কাজ।
এখানে কী হবে জানতে চাইলে কর্মরত শ্রমিকরা জানান, রিটেনিং দেয়াল ও পাহাড়ের মধ্যবর্তী স’ানে ২০ ফুট চওড়া একটি রাস্তা হবে। আর রাস্তা নির্মাণের জন্যই পাহাড় কাটতে হচ্ছে।
জানা যায়, এই রিটেনিং দেয়ালের ডিজাইন করেছেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মোজাম্মেল হক। পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি তো ডিজাইন দিয়েছি রিটেনিং দেয়াল নির্মাণের জন্য। পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণের প্রশ্নই আসে না।
কিন’ বাস্তবে পাহাড় কাটা হচ্ছে জানানো হলে তিনি বলেন, ‘তাহলে তা আমার জানা নেই। কারণ রিটেনিং দেয়াল নির্মাণের পর প্রয়োজনে আরো মাটি ভরাট করার কথা বলা হয়েছে, সেখানে পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণের বিষয়টি নেই।’
এ ধরনের রিটেনিং দেয়াল নির্মাণের বিষয়টি অনুমোদন দিয়ে থাকে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। এ বিষয়ে সিডিএ’র প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ স’পতি শাহীনুল ইসলাম খান বলেন, ‘পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণের বিষয়টি আমাদের অনুমোদনে নেই। তবে রিটেনিং দেয়াল নির্মাণের একটি অনুমোদন আমরা দিয়েছিলাম।’
উল্লেখ্য, পাহাড়ধস ব্যবস’াপনা কমিটির সভায় চট্টগ্রামের ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ের তালিকায় রয়েছে প্রবর্তক পাহাড়। এই পাহাড়ের চূড়ায় মার্বেল পাথর দিয়ে ইসকন মন্দিরটি গড়ে তোলায় তা অনেক শক্তিশালী স’াপনা হয়েছে। কিন’প্রবর্তক পাহাড়ের মাটি এই স’াপনাকে আটকে রাখার মতো নয়, কারণ বালি মাটির এই পাহাড়টি কয়েক স’ানে ধসে পড়েছিল বলে জেলা প্রশাসনের রিপোর্টে উল্লেখ ছিল। একারণে পাহাড় রক্ষায় এর চারপাশে রিটেনিং দেয়াল নির্মাণের সুপারিশ করে পাহাড় ব্যবস’াপনা কমিটি।