পটিয়া ও উখিয়ায় আগুনে পুড়ল ২৬ বসতঘর

নিজস্ব প্রতিনিধি, পটিয়া ও ঊখিয়া

পটিয়া ও উখিয়ায় পৃথক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ২৬টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। এতে প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।
গতকাল শনিবার দুপুর ১টায় উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মহাজন বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ওই এলাকার সন্তোষ মহাজন, প্রকাশ মহাজন, সুজন মহাজন, দীপু মহাজন, সনাতন মহাজন, মিলন মহাজন, বিধান মহাজন, পান্না মহাজন, বিশ্বনাথ মহাজন, নিতাই মহাজন, নেভী মহাজন, কিরন মহাজন, কিরিটি মহাজন, বাচ্চু মহাজন, রতন মহাজন, আদর্শ মহাজন, খোকন মহাজন, কান্তি মহাজন, তপন মহাজন, অর্জুন মহাজন, মিলন মহাজনসহ ২২ ঘর পুড়ে ছাই হয়। এতে নগদ টাকা, স্বর্ণলংকারসহ প্রায় কোটি টাকার মালামাল পুড়ে গেছে।
স’ানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার দুপুরে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে সৃষ্ট আগুনে উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের মহাজন বাড়ির ২২ বসতঘর পুড়ে গেছে। আগুনের খবর পেয়ে পটিয়া ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস’লে গেলে দীর্ঘ প্রচেষ্টার পর আগুন নেভাতে সক্ষম হন।
এ ব্যাপারে শোভনদন্ডী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসানুল হক জানিয়েছেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। এতে ২২ পরিবারের অন্তত কোটি টাকার মালামাল পুড়ে গেছে। ঘটনার পর পরেই পটিয়ার সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও কম্বল বিতরণ করেছেন। স’ানীয় ওয়ার্ড মেম্বার বাবুল কান্তি চৌধুরী জানিয়েছেন, ঘটনার পর এমপি সামশুল হক চৌধুরী ও ইউপি চেয়ারম্যান এহসানুল হক অর্থ ও কম্বল প্রদান করেছেন।
এদিকে, উখিয়ায় ভয়াবহ আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে ৪ বসতঘর । এতে চার পরিবারের প্রায় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গতকাল শনিবার ভোর পৌনে ৫টার দিকে রত্নাপালং ইউনিয়নের কোটবাজার সাতবাড়িয়া পাড়া এলাকায় এ অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে।
অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত মৃত প্রিয়দর্শী বড়ুয়ার পুত্র আশুতোষ বড়ুয়া, পরিতোষ বড়ুয়া, মৃত লোকনাথ বড়ুয়ার পুত্র রূপন বড়ুয়া ও সুমন বড়ুয়ার জানান, পাশাপাশি ২ বাড়িতে আগুন জ্বেলে পরিবারের লোকজন শীত নিবারণের চেষ্টা করছিল। হঠাৎ করে তীব্রতা বেড়ে গিয়ে ঘরে আগুন লেগে যায়। এসময় পাড়া প্রতিবেশীরা চেষ্টা করেও আগুন আয়ত্তে আনতে পারেনি। ফলে ৪টি বসতবাড়ি সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়ে যায়। ঘটনাস’ল পরিদর্শন করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাইলাউ মারমা বলেন, আগুনের সূত্রপাতের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান বলেন, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ৪ পরিবারকে প্রাথমিক পর্যায়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৬ হাজার করে নগদ টাকা, ২ বান করে ঢেউটিন, ৫টি করে শীতের কম্বল, ২টি শাড়িও ২টি লুঙ্গি দেয়া হয়েছে।