এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলীর অপসারণ দাবি

বান্দরবানে উন্নয়ন কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত ঠিকাদারদের

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান

এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোহন চাকমার অপসারণ দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বান্দরবানে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। সেইসাথে স্থানীয় সরকার বিভাগের প্রধান প্রকৌশলীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন ঠিকাদার সমিতির নেতৃবৃন্দ।
পরে বান্দরবান প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোহন চাকমার বিরুদ্ধে ঠিকাদার রফিক আহমেদকে মারধর, প্রাণনাশের হুমকি এবং উন্নয়ন কাজে ঠিকাদারদের ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেন ঠিকাদারেরা।
এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ঠিকাদার সমিতির নেতা তৌহিদুর রহমান রাশেদ চৌধুরী। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঠিকাদার সমিতির উপদেষ্টা ও বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষ্মীপদ দাশ, মশিউর রহমান মিঠুন, পৌর কাউন্সিলর সৌরভ দাশ শেখর, ঠিকাদার সমিতির সভাপতি সাবিকুর রহমান জুয়েল প্রমুখ।
এছাড়া সংবাদ সম্মেলনের আগে ঠিকাদার রফিক আহমেদকে মারধর, প্রাণনাশের হুমকি, ভয়ভীতি দেখানোর প্রতিবাদে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ঠিকাদাররা। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিকের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার বিভাগের (এলজিইডি) প্রধান প্রকৌশলী বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছেন ঠিকাদাররা।
ঠিকাদার সমিতির উপদেষ্টা লক্ষ্মীপদ দাশ বলেন, ঠিকাদারেরা উন্নয়নের স্বার্থে সরকারের উন্নয়ন কাজগুলো বাস্তবায়ন করছে। কাজ করতে গিয়ে অনেক বাধা বিপত্তির সম্মুখীন হচ্ছে। কিন্তু নির্বাহী প্রকৌশলী কর্তৃক ঠিকাদার রফিক আহমেদকে মারধর, লাঞ্ছনা কোনোভাবেই মানতে পারছি না। শুধু ঠিকাদার নয়, নির্বাহী প্রকৌশলী মোহন চাকমার অত্যাচার-আচরণে অতিষ্ঠ অফিসের কর্মচারীরাও। বান্দরবানের উন্নয়নের স্বার্থে নির্বাহী প্রকৌশলীর অপসারণের দাবি জানাচ্ছি।
ঠিকাদার মশিউর রহমান বলেন, ঠিকাদার রফিককে মারধরের প্রতিবাদে কর্মসূচি দেওয়ায় নির্বাহী প্রকৌশলী ফোন করে অন্য ঠিকাদারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। এলজিইডি বিভাগে কাজ কিভাবে করে দেখিয়ে নেয়ার হুমকি দিচ্ছে। তাই নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া পর্যন্ত বান্দরবানে এলজিইডি বিভাগের চলমান সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত সড়ক, গোয়ালিখোলা সাঙ্গু ব্রিজসহ প্রায় দুইশ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে জেলায়।
ঠিকাদার সমিতির সভাপতি সাবিকুর রহমান বলেন, পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ নেয়া হবে।
নির্যাতিত ঠিকাদার রফিক আহমেদ বলেন, নির্বাহী প্রকৌশলী মোহন চাকমার সঙ্গে তার কোনো শত্রুতা নেই। আগে পরিচয়ও ছিলনা। গত মঙ্গলবার এলজিইডি বিভাগের অফিস রুমে ঢুকে আমায় কোনো কারণ ছাড়ায় মারধর করেন। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।
প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার দুপুরে মেসার্স আকতার ট্রেডার্সের লাইসেন্সের বই সংগ্রহ করতে লামা উপজেলার বাসিন্দার ঠিকাদার রফিক আহমেদকে জেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ (এলজিইডি) নির্বাহী প্রকৌশলী মোহন চাকমা অফিস সহকারীর কম্পিউটার রুমে অযথা ঘুষি এবং চর-থাপ্পর মারেন।