চাকসু নির্বাচন

৫ সদস্যের নীতিমালা রিভিউ কমিটি গঠন

চবি সংবাদদাতা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (চাকসু) নির্বাচনের নীতিগত সিদ্ধান্তের পর এবার পাঁচ সদস্যের নীতিমালা রিভিউ কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী এ কমিটি গঠন করেন। গঠিত কমিটিকে ডাকসুর নীতিমালা বিশ্লেষণ করে স্বল্পতম সময়ের মধ্যে একটি যুগোপযোগী নীতিমালা প্রণয়নের সুপারিশ করতে বলা হয়েছে।
নীতিমালা পর্যালোচনা কমিটির প্রধান বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শফিউল আলম। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এ বি এম আবু নোমান, লোকপ্রশাসন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আমীর মোহাম্মাদ নসরুল্লাহ, সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র ও সদস্যসচিব হিসেবে রয়েছেন নির্বাচন শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ ইউসুফ।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘চাকসু নির্বাচন যাতে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পারি সেজন্য পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করে দিয়েছি। এই কমিটি ডাকসুসহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতিমালার সাথে সামঞ্জস্য রেখে নতুন নীতিমালা তৈরি করবে।’
কখন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য বলেন, ‘দ্রুততম সময়ের মধ্যে আমরা নির্বাচন অনুষ্ঠানের চেষ্টা করবো।’
হঠাৎ করে চাকসু নির্বাচন নিয়ে প্রশাসনের এ প্রদক্ষেপ কেন জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, আগে চাকসু নিবার্চনের পরিবেশ ছিল না। ডাকসু নির্বাচনের মাধ্যমে কিছুটা পরিবেশ আসছে। এছড়াও সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ চাকসু নির্বাচন দেওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানিয়েছেন। কারণ নেতৃত্ব বিকাশে ছাত্র সংসদের বিকল্প নেই। বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনগুলোরও দীর্ঘ দিনে দাবি ছিল চাকসু নির্বাচন। আমিও ব্যক্তিগতভাবে মনে করি চাকসু নির্বাচন এখন সময় উপযোগী একটি সিদ্ধান্ত। তাই সে লক্ষ্যে কাজ চলছে। তবে, প্রধানমন্ত্রীর সদয় নির্দেশনার মাধ্যমে মূল কাজ শুরু করবো। এখন শুধু প্রাথমিক কাজ শুরু করছি।’
উল্লেখ্য, গত বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাধ্যক্ষদের সাথে এক সভায় চাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠানের নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।