৩ জনের অবস্থা আশংকাজনক পিকনিক বাসে ট্রেনের ধাক্কা, আহত ২০

নিজস্ব প্রতিনিধি, সীতাকু

সীতাকু- ইকোপার্ক রেলক্রসিংয়ে ট্রেনের ধাক্কায় পিকনিকের বাসের ৯ যাত্রী গুরম্নতর আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন মো. দাউদ (৪৫), শিরীন বেগম (৫০) মো. ইমন (৮) আবুল কাসেম (১৬) আব্দুল আওয়াল (১৫) মো. জোনায়েদ (১৬) তোহা (৮) মোজাহিদ (৮) মোরশিদা (২২) । বুধবার দুপুর দুইটায় সীতাকু- ইকোপার্ক রেলক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরম্নতর আহত শিরীন, দাউদ ও ইমনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহতদের সকলের বাড়ি ফেনী জেলা সদরে।
স’ানীয় ও ফায়ারসার্ভিস সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে ফেনী দারম্নল আরকাম মাদ্রাসার শিড়্গক, শিড়্গার্থী ও অভিভাবক মিলে ২৫০ জনের একটি দল ৫টি বাসযোগে
পিকনিকের উদ্দেশে সীতাকু- ইকোপার্ক ও বোটানিক্যাল গার্ডেনে আসে। দুপুর ২টায় পিকনিক শেষ করে বাসগুলি যখন রেলক্রসিং পার হচ্ছিল এমন সময় চট্টগ্রামগামী একটি ট্রেন সব শেষবাসটির পেছনে ধাক্কা দিয়ে বাসটির পিছনের অংশকে ছিড়ে নিয়ে যায়। এ বাসটিতে সর্বমোট ৪৫ জন যাত্রী ছিল। বাসে থাকা ছাত্র শিড়্গক অভিভাবক মিলে মোট ২০ জন আহত হন।
খবর পেয়ে সীতাকু- ফায়ার সার্ভিস টিমের ২টি ইউনিট ও ১টি অ্যাম্বুলেন্স এসে আহতদের উদ্ধার করে সীতাকু- স্বাস’্য কমপেস্নক্সে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক ১১ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেন এবং ৯ জনকে ভর্তি করান। এদের মধ্যে ৩ জনের অবস’া আশংকাজনক হওয়ায় পরে তাদের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। তারা হলেন শিরিন বেগম, মো. দাউদ ও ইমন।
সীতাকু- ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা ওয়াসি আজাদ জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে দুটি ইউনিটের তিনটি গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স ঘটনাস’লে গিয়ে গুরম্নতর আহত ১৩ জনকে উদ্ধার করি। এর আগে স’ানীয়রাও কিছু লোককে উদ্ধার করে হাসপাতাল নিয়ে যায়। আহতদেরকে উপজেলা স্বাস’্য কমপেস্নক্সে নিয়ে গেলে সেখান থেকে ৩ জনকে চমেক হাসপাতালে রেফার করা হয়।
উলেস্নখ্য, এই স’ানে ট্রেন আসার কোন সিগনাল এবং গেট না থাকায় ২০১১ সালে পিকনিক মাইক্রোবাসে ৮ জন ও তার পরবর্তীতে ৮ বছরে মিনি ট্রাক, কার ও মাইক্রোতে আরো ৬ জনের মৃৃত্যু হয়। এই জায়গাটিতে একটি গেইটের প্রয়োজনীয়তা উলেস্নখ করে অনেক লেখালেখি হলেও কর্তৃপড়্গ এ ব্যাপারে উদাসীন।