৩০০ আসনে আবেদনকারী ৫৪৩ চট্টগ্রামের ২৭ প্রার্থীর আপিল

নিজস্ব প্রতিবেদক

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০টি সংসদীয় আসনের বিপরীতে মনোনয়নপত্র বাতিল আদেশের বিরম্নদ্ধে মোট ৫৪৩ জন প্রার্থী নির্বাচন কমিশনে আপিল করেছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রামের ১৬টি আসনের বিপরীতে ২৭ জন প্রার্থী আপিল করেছেন বলে জানা গেছে।
ঢাকার আগারগাঁও নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নির্বাচন ভবনে আজ বৃহস্পতিবার সকাল দশটা থেকে শুরেম্ন হবে তিন দিনব্যাপী আপিল শুনানি। নির্বাচন ভবনের এগারো তলায় স’াপিত এজলাসে নির্বাচন কমিশনার একেএম নুরম্নল হুদা শুনানি গ্রহণ করবেন। আজ বৃহস্পতিবার ক্রমিক নম্বর ১-১৬০ আপিলের শুনানি, কাল শুক্রবার ক্রমিক নম্বর ১৬১-৩১০ এবং শনিবার ক্রমিক নম্বর ৩১১-অবশিষ্ট আপিলের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।
আপিল শুনানি চলাকালে সংশিস্নষ্ট সকলকে নির্বাচন ভবনের নিচ তলায় অপেড়্গা করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।
জানা গেছে, মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরম্নদ্ধে আবেদনকারীদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরীর নির্বাচনী এলাকার ৬টি সংসদীয় আসনের ১৪ জন এবং জেলা পর্যায়ের ১০টি আসনের ১৩ জন প্রার্থী রয়েছেন। বিএনপির ১১ জন, ইসলামী ঐক্যজোটের ১ জন, জাতীয় পার্টির ১ জন, জমিয়ত উলামায়ের ১ জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ৭ জন, জাতীয় পার্টির (জেপি) ২ জন, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের ২ জন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) ১ জন এবং লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) ১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র বৈধ করার জন্য আবেদন করেছেন।
প্রাপ্ত তথ্যমতে, মহানগর পর্যায়ে চট্টগ্রাম-২ সন্দ্বীপ ও চট্টগ্রাম-৭ রাঙ্গনিয়া আসনের বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৪ সীতাকু- আসনের বিএনপির আসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৫ হাটহাজারী আসনের বিএনপির মীর মো. নাছির উদ্দিন ও মির হেলাল উদ্দিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মাসুদুল আলম বাবলু; চট্টগ্রাম-৮ বোয়ালখালী আসনের বিএনপির এম মোরশেদ খান ও এরশাদ উলস্নাহ; চট্টগ্রাম-৯ কোতোয়ালী-বাকলিয়া আসনের বিএনপির সামসুল আলম, ইসলামী ঐক্যজোটের মো. দুলাল খান, জাতীয় পার্টির মোরশেদ সিদ্দিকি, জমিয়ত উলামায়ের মো. নাসির উদ্দিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হাসান মাহমুদ চৌধুরী; চট্টগ্রাম-১০ পাহাড়তলী-ডবলমুরিং আসনের জাতীয় পার্টির মো. ওসমান খান ও জাতীয় পার্টির (জেপি) আজাদ দোভাষ; চট্টগ্রাম-১১ বন্দর-পতেঙ্গা আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মাওলানা আবু সাঈদ এবং জেলা পর্যায়ে চট্টগ্রাম-১ মিরসরাই আসনের বিএনপির নুরম্নল আমিন; চট্টগ্রাম-৩ সন্দ্বীপ আসনের বিএনপির মো. মোসত্মফা কামাল পাশা ও জাসদের মো. আবুল কাশেম; চট্টগ্রাম-৬ রাউজান আসনের বিএনপির মো. সামির কাদের চৌধুরী; চট্টগ্রাম-৭ রাঙ্গুনিয়া আসনের বিএনপির আবু আহমেদ হাসনাত ও বিএনএফের মো. আব্দুল আলীম; চট্টগ্রাম-১২ পটিয়া আসনের এলডিপির এম এয়াকুব আলী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবু তালেব হেলালী; চট্টগ্রাম-১৩ আনোয়ারা-কর্ণফুলী আসনের বিএনএফের নারায়ণ রড়্গিত; চট্টগ্রাম-১৫ লোহাগাড়া-সাতকানিয়া আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল জব্বার ও মুহাম্মদ জাফর সাদেক এবং চট্টগ্রাম-১৬ বাঁশখালী আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জহিরম্নল ইসলাম মনোনয়নপত্র বৈধ করতে আবেদন করেছেন।
উলেস্নখ্য, চট্টগ্রামে ১৬টি সংসদীয় আসনের বিপরীতে মোট ১৮০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। জেলা পর্যায়ের ১০টি আসনে ১০১ জন এবং মহানগর পর্যায়ের ৬টি আসনে ৮০ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এ মধ্যে যাচাই-বাছাই শেষে ৪৭ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। জেলা পর্যায়ের ১০১ জন প্রার্থীর মধ্যে ২২ জনের এবং মহানগর পর্যায়ের ৮০ জন প্রার্থীর মধ্যে ২৫ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়।