২০২ কোটি টাকা ব্যয়ে হবে ২৩তলা নগর ভবন

নিজস্ব প্রতিবেদক

দুইশ দুই কোটি টাকা ব্যয়ে ২৩ তলাবিশিষ্ট নগর ভবন নির্মাণ করার সিদ্ধানত্ম নিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। বর্তমান নগর ভবনটি ভেঙে পাশের জায়গা নিয়ে প্রায় ৩৩ হাজার নয়শ ৫৫ বর্গফুট জমির উপর এ নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে।
নতুন নগর ভবনে লিফট, শীতাতপ নিয়ন্ত্রণের ব্যবস’া ও সার্বড়্গণিক বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য সাবস্টেশন, জেনারেটর এবং সোলার প্যানেল স’াপন করা হবে। এ প্রকল্পে
কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আনা নেওয়ার জন্য অফিস বাস দুটি, এরিয়াল লিফট তিনটি, ওয়াটার ভাউজার তিনটি, ডাবল কেবিন পিকআপ চৌদ্দটি, আটটি জিপ ও একটি পাজেরো থাকবে।
গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ৪৪তম সাধারণ সভায় নতুন নগর ভবন নির্মাণের বিষয়ে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এ তথ্য জানান। ২০২২ সালের জুন মাসের মধ্যে নতুন নগর ভবন নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে মেয়র আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
জানা যায়, নাগরিক সেবা প্রদান ও সুবিধাদি নিশ্চিত করা, করপোরেশনের কর্মকর্তা কর্মচারীদের কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করার লড়্গে নতুন নগর ভবন নির্মাণ করার প্রথম সিদ্ধানত্ম নেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। তারই অংশ হিসাবে ২০১০ সালের মার্চ মাসে ২০তলা নগর ভবনের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রসত্মর স’াপন করেন তিনি। কিন’ সে বছরের এপ্রিল মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তিনি পরাজিত হলে কাজ থমকে যায়। এরপর তৎকালীন মেয়র এম মনজুর আলম ২০১৪ সালের নগর ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেও চার মাস পর আবারও বন্ধ হয়ে যায় নির্মাণকাজ।
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন নতুন নগর ভবন নির্মাণের জন্য উদ্যোগ নেন। এ লড়্গে তিনি কাজ শুরম্ন করেন। এরই মধ্যে একবার ২৫ তলা নগর ভবন নির্মাণ করার কথা শোনা গেলেও তা আবারও থমকে দাঁড়ায় নানা জটিলতার কারণে।
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী শামসুদ্দৌহা বলেন, নতুন নগর ভবন নির্মাণ কাজ শুরম্ন হলে টাইগার পাস এলাকার ভবনটিতে সিটি করপোরেশনের কার্যক্রম চলবে, সভায় এ সিদ্ধানত্ম নেওয়া হয়েছে।