নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বললেন

২০০১ সালের চেয়েও পরিস্থিতি ভয়ংকর হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের-সুপ্রভাত
দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের-সুপ্রভাত

বিএনপি ক্ষমতায় এলে ২০০১ সালের চেয়েও ভয়ংকর পরিসি’তি তৈরি করবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
গতকাল রোববার চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সম্মেলনে এসে সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ না হলে আপনারা দুর্বল হলে আওয়ামী লীগের যে ক্ষতি হবে সেটা ২০০১ সালের চেয়েও ভয়ঙ্কর হবে। সে কথা কি ভেবে দেখেছেন?’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মাঝে মাঝে আপনারা নিজেরা নিজেদের বিরুদ্ধে যেভাবে কথা বলেন, মনে হয় আপনার দলের লোক বিএনপির চেয়ে আপনার বেশি শত্রু। অতীতের সে দুঃসহ স্মৃতি যদি মনে থাকে তাহলে অনৈক্য করবেন না। কলহ করবেন না, দলকে বিভক্ত করবেন না। ঘরের মধ্যে ঘর করবেন না। মশারির মধ্যে মশারি খাটাবেন না।’
২০০১ সাল থেকে বিএনপির পাঁচ বছরের শাসনকালকে ‘অমানিশার অন্ধকার’র সঙ্গে তুলনা করে মন্ত্রী কাদের বলেন, ‘সে অন্ধকারে ফিরে যাবে, যদি বিএনপি আবার ক্ষমতায় আসে। বিএনপি ও তার দোসররা যদি ক্ষমতায় আসে, আবারও একুশে অগাস্টের মতো ঘটনা ঘটবে। নজিরবিহীন খুন, লুণ্ঠন ও নৈরাজ্য ফিরে আসবে।’
‘একটা কথা বলতে চাই, আওয়ামী লীগ যদি ঐক্যবদ্ধ থাকে, আগামী নির্বাচনে কেউ আওয়ামী লীগকে ঠেকাতে পারবে না, ’বলেন দলের সাধারণ সম্পাদক।
বিএনপির বিষয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের হুঁশিয়ার করে মন্ত্রী কাদের বলেন, ‘একটা কথা বলে রাখি, বিএনপির এখন প্রধান শত্রু আওয়ামী লীগ নয়, বিএনপি ও তার দোসরদের প্রধান টার্গেট এখন শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনাকে হটাতে পারলে বিএনপির শান্তি।’
সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘গত নির্বাচনে অনেক এমপিকে ফুটবল খেলোয়াড়দের মতো হায়ার করে নিয়ে আসা হয়েছে। কিন’ যাদের সাথে তৃণমূলের সম্পর্ক নেই, জনগণের সম্পর্ক নেই তাদের মনোনয়ন পাওয়া দুরুহ হবে এবার।’
কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সরকারের নেতৃত্ব দিবেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। নির্বাচন কমিশনের অধীনেই নির্বাচন হবে।’
আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম বিভাগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম ‘অকারণে’ এমপিদের সমালোচনা না করতে তৃণমূল নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘অকারণে যেমন সমালোচনা করা ঠিক না, তেমনি সমালোচনা করলে কর্মীদের বাড়িতে পুলিশ পাঠিয়ে হয়রানি করবেন না।’
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া।