১০ বছর ট্যাক্স হলিডে চায় দেশি মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলো

সুপ্রভাত ডেস্ক

দেশে মোবাইল ফোন উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলো জন্য আগামী ১০ বছর ট্যাক্স হলিডে চায় বাংলাদেশ মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী অ্যাসোসিয়েশন। একই সঙ্গে এ খাতের জন্য আলাদা ইকোনমিক জোন গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে। বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলন কক্ষে প্রাক-বাজেট আলোচনায় মোবাইল প্রস্তুতকারী কোম্পানিগুলোর কয়েকটি সংগঠন এই প্রস্তাব করে। এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে সভায় রাজস্ব বোর্ডের সদস্যসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপসি’ত ছিলেন। খবর বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম এর।
সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিতু বলেন, দেশের এই মুহূর্তে কোটি কোটি মোবাইলের চাহিদা। এই চাহিদা পূরণ করতে বেশ কিছু কোম্পানি কাজ করতে শুরু করেছে। এর মধ্যে ৪-৫টি কোম্পানি মোবাইল উৎপাদন শুরু করেছে। দেশে মোবাইল ফোন তৈরিতে উৎসাহিত করতে এখন প্রয়োজন আগামী ১০ বছর ট্যাক্স হলিডে সুবিধা দেওয়া। পাশাপাশি বিদেশ থেকে মোবাইল ফোন আমদানিকে নিরুৎসাহিত করতে বেশি হারে কর নির্ধারণ করার প্রস্তাব করছি।
এই প্রস্তাবকে সমর্থন জানিয়ে বাংলাদেশ মোবাইল ইম্পোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমপিআইএ) সভাপতি রুহুল আলম আল মাহবুব বলেন, মোবাইল আমদানিকে নিরুৎসাহিত করতে সরকার উদ্যোগ নেওয়ার সময় এসেছে। এর ওপর নতুন করে কর বসানো উচিত।
তিনি বলেন, আগামী ৬ মাসের মধ্যে দেশি কয়েকটি কোম্পানি মোবাইল উৎপাদন শুরু করবে। দ্রুত বাজারজাত করতে পারবে। দেশীয়ভাবে দ্রুত মোবাইল ফোন উৎপাদনের জন্য আসছে বাজেটে মোবাইল ফোনের ওপর আরোপিত ১০ শতাংশ শুল্ক কর রয়েছে।
এটা কমিয়ে ১ শতাংশ করার প্রস্তাব করছি। পাশাপাশি এই শিল্পের জন্য আগামী পাঁচ বছরের জন্য একটি প্রণোদনামূলক শুল্ক কর ব্যবস’ার প্রস্তাব করছি।
একই সঙ্গে ৪-জি সাপোর্ট করে এমন স্মার্টফোন আমদানির ওপর আরোপিত শুল্ক ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২২ শতাংশ করার প্রস্তাব (শুল্ক, মূসক, সারচার্জ এবং অগ্রিম আয়কর) করছি। তবে এটা আগামী ২ বছরের জন্য করার প্রস্তাব করা হয়।