১০ দেশের গার্মেন্টস টেকনোলজি জিইসি কনভেনশনে

নিজস্ব প্রতিবেদক

গার্মেন্টস শিল্প মালিকদেরকে অত্যাধুনিক টেকনোলজি সম্পর্কে অবহিত করার লক্ষ্যে নগরীতে শুরু হয়েছে দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ‘গার্মেন্টেক চিটাগাং-২০১৮। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে তিন দিনব্যাপী গার্মেন্টস টেকনোলজির এ প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।
আয়োজকরা জানান, প্রায় ১০০টির অধিক স্টলে ১০টি দেশের ৬০ কোম্পানি তাদের গার্মেন্টস টেকনোলজি নিয়ে হাজির হয়েছে প্রদর্শনীতে। দেশগুলো হলো বাংলাদেশ, ভারত, চীন, তাইওয়ান, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, হংকং, থাইল্যান্ড, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া। এখানে তারা মেশিনারিজ, যন্ত্রাংশ এবং গার্মেন্টসের বিভিন্ন পণ্য প্রদর্শন করছেন।
মেলার আয়োজক এএসকে ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিউশনস প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালক টিপু সুলতান ভূঁইয়া সুপ্রভাতকে বলেন, ‘যে সব উদ্যোক্তা নতুন কারখানা স’াপন ও সম্প্রসারণের চিন্তা করছেন; তাদের প্রয়োজনীয় সব ধরনের পণ্য একই ছাদের নিচে পাওয়ার ব্যাপারে গার্মেন্টেক চিটাগং প্রদর্শনী সাহায্য করবে। এ প্রদর্শনীতে একই ছাদের নিচে মেশিনারি, সুতা ও বস্ত্র, গার্মেন্টস এক্সেসরিজ খোঁজার একটি বড় সুযোগ রয়েছে। এখানে বিশ্বের নামি-দামি ব্র্যান্ডের সুইমিং মেশিন, কাটিং মেশিন, আয়রনিং অ্যান্ড ফিনিসিং মেশিন, অ্যামব্রয়ডারি মেশিন প্রদর্শন করা হচ্ছে।
প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘ সরকার গার্মেন্টস শিল্পের প্রসারে নানামুখী প্রণোদনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তৈরি পোশাক শিল্পে বিশ্বের ২য় বৃহত্তম রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে বাংলাদেশ পরিচিতি লাভ করেছে। প্রতিযোগিতামূলক বাজারে পোশাক রপ্তানিতে ৫ হাজার কোটি মার্কিন ডলার আয়ের লক্ষ্যে উৎপাদনশীলতা, কমপ্লায়েন্স, নিরাপত্তা নিশ্চিতের বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা কাজ করছেন। এ বিষয়গুলো নিশ্চিত করা গেলে এগিয়ে যাবে এই শিল্প।’
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বিজিএমইএ’র প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট মঈনউদ্দিন আহমেদ মিন্টু, পরিচালক রাজিব দাশ, সাধারণ সম্পাদক আলতাফ মাহমুদ, এএসকে ট্রেড ও এক্সিবিউশন প্রাইভেট লিমিটেডর পরিচালক নন্দগোপাল কে, পরিচালক সেলিম বাশা ও আসাদ করিম প্রমুখ উপসি’ত ছিলেন।
প্রদর্শনী খোলা থাকবে প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত। প্রদর্শনী চলবে শনিবার পর্যন্ত। মেলায় কোনো প্রবেশ মূল্য নেই।