হয়তো আনন্দ দিনে

জিললুর রহমান

হেঁটেছো ঊনিশ কতো বছরের পথ
কে সারথী আর কে বা দিব্য সেই রথ
সংসার দ্বৈরথ চির শঙ্কাপূর্ণ, তবু
মন আলো করে থাকে সন্তানের ট্যাবু

এদিকে গোপনে নিত্য ঠুঁটো জগন্নাথ
নিষ্পলক ভাগ্য গোনে দিবা কিংবা রাত
হয়তো ঠোঁটের কোণে তার ক্ষীণ হাসি
অনর্থ অর্থের চেয়ে ঝরে রাশি রাশি

পরিবৃত মহাপ্রেম মহামায়াজাল
নতুন অনর্থে ভরে সব বেসামাল
আমাদের যেতে হবে দূরে বহুদূরে
তাল তরঙ্গের মৃদু নম্র হার্দ্য সুরে

আঁকড়ে রেখেছি বুকে – তীব্র প্রাণে, তাই
পৃথিবীতে যতো দু:খ মনোকষ্ট পাই
অলিন্দ নিলয় যেন প্রেমে টালমাটাল
প্রসন্ন হৃদয়ে ধরি সংসারের হাল