হ্যাক হয়েছিল ব্রেক্সিট নিয়ে গণভোটের ওয়েবসাইট!

সুপ্রভাত ডেস্ক

২০১৬ সালের ২৩ জুন ব্রেক্সিট ইস্যুতে অনুষ্ঠিত গণভোটে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে রায় দেন দেশটির ভোটাররা। তবে বুধবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ব্রিটিশ এমপি’রা বলেছেন, ব্রেক্সিট নিয়ে গণভোটের প্রাক্কালে এ সংক্রান্ত ভোটার রেজিস্ট্রেশন ওয়েবসাইটটি হ্যাক হওয়ার ইঙ্গিত মিলেছে। ২০১৬ সালের ৭ জুন ছিল ব্রেক্সিট ইস্যুতে ভোটারদের রেজিস্ট্রেশনের শেষ দিন। কিন’ শেষ সময়ে রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে সমস্যা দেখা দেয়। এটি কাজের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। সে সময় ব্রিটিশ সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, শেষ দিনে বিপুল সংখ্যক ভোটার একসঙ্গে রেজিস্ট্রেশন করতে চাওয়ায় সার্ভারে সমস্যা দেখা দিয়েছে। এ ঘটনায় ভোটার রেজিস্ট্রেশনের সময়সীমা বৃদ্ধি করে ব্রিটিশ সরকার।
যুক্তরাজ্যের হাউস অব কমন্সের পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কমিটি’র প্রতিবেদনে অবশ্য বলা হয়েছে, একটি বিদেশি রাষ্ট্রের ওই সাইবার হামলা ব্রেক্সিট ইস্যুতে হওয়া গণভোটে তেমন প্রভাব ফেলেনি।
প্রতিবেদনে বলা হয়, আমরা ব্রেক্সিট নিয়ে গণভোটে বিদেশি হস্তক্ষেপের আশঙ্কা বাতিল করে দিচ্ছি না। তবে আমরা এটাও বিশ্বাস করি না যে, ওই হস্তক্ষেপ গণভোটের ফলে প্রভাব বিস্তার করেছে। তবে ভবিষ্যতে যে কোনও নির্বাচনে একে টেকনিক্যাল সমস্যা হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে এখনই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। ব্রেক্সিটের ভোটার রেজিস্ট্রেশন ওয়েবসাইটটি পরিচালনার দায়িত্বে ছিল যুক্তরাজ্যের কেবিনেট অফিস। এই হ্যাকিং-এর ব্যাপারে হতাশা প্রকাশ করে তারা বলছে, এই ‘মারাত্মক হস্তক্ষেপ’-এর বিষয়টি তখন তারা আঁচ করতে পারেনি।