বৈজ্ঞানিক সেমিনার

হার্টের চিকিৎসায় মানুষ ডিভাইস পছন্দ করছেন

সুপ্রভাত ডেস্ক

হার্টের চিকিৎসায় সার্জারির চেয়ে তুলনামূলক দাম বেশি হলেও এএসডি, পিডিএ, ভিএসডির মতো ডিভাইস বেশি পছন্দ করছেন বলে মন্তব্য করেছেন দিল্লির ফরটিস এসকর্টস হার্ট ইনস্টিটিউটের পেডিয়াট্রিক কার্ডিওলজির ডিরেক্টর ডা. এস রাধাকৃষনান। খবর বাংলানিউজ’র ।
‘ম্যানেজমেন্ট অব কনজেনিটেল হার্ট ডিজিজ নন অপারেটিভ ইন্টারভেনশন অর সার্জিক্যাল ইন্টারভেনশন’ শীর্ষক বৈজ্ঞানিক সেমিনারে কি নোট স্পিকারের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সোমবার বিকেলে চিটাগাং ক্লাব অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত সভায় বাংলাদেশ পেডিয়াট্রিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি প্রফেসর ডা. ঝুলন দাশ শর্মা সভাপতিত্ব করেন।
ডা. এস রাধাকৃষনান বলেন, পশ্চিমা বিশ্বে সার্জারি অনেক ব্যয়বহুল। ভারত উপমহাদেশে সরকারি হাসপাতালগুলোতে ভর্তুকির কারণে সার্জারিতে খরচ কম পড়ে। তারপরও মানুষ ডিভাইস পছন্দ করছে। যদিও সার্জারির তুলনায় দাম কিছুটা বেশি। কিন্তু ডিভাইস লাগানোর পরদিনই খুশিমনে বাড়ি ফিরতে পারছেন রোগী। সার্জারির ক্ষেত্রে এটি সময়সাপেক্ষ। রোগীর জন্য সঠিক ডিভাইসটি পছন্দ করা গেলে জটিলতা নেই বললেই চলে।
চট্টগ্রামে প্রথমবার এসেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমার সব আগ্রহ পেডিয়াট্রিক কার্ডিওলজিতে। শিশুদের ভালোবেসে তাদের জন্মগত হার্টের ছিদ্র ডিভাইসের মাধ্যমে সচল রেখে আমি আনন্দ পাই। চট্টগ্রামে পেডিয়াট্রিক কার্ডিওলজি ডেভেলপ হওয়া উচিত। মাস দুয়েক পর সপ্তাহখানেকের জন্য চট্টগ্রামে আসার ইচ্ছে আছে। তখন আমরা শিশু বিশেষজ্ঞ ও সার্জনদের নিয়ে হাতে-কলমে কর্মশালা করতে চাই।
অতিথি ছিলেন ঢাকার এনআইসিভিডির সাবেক পরিচালক ও বাংলাদেশ পেডিয়াট্রিক কার্ডিয়াক সোসাইটির সেক্রেটারি ডা. জাহিদ হোসেন।
আলোচনা করেন চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের বিভাগীয় প্রধান ডা. মো. বদরুদ্দোজা, চমেকের পেডিয়াট্রিক বিভাগের প্রধান ডা. প্রণব কুমার চৌধুরী, ডা. দিদারুল আলম, ডা. আবদুল্লাহ শাহরিয়ার।
স্বাগত বক্তব্য দেন ফরটিস চট্টগ্রামের চিফ কার্ডিয়াক সার্জন ডা. মির্জা আবুল কালাম মহিউদ্দিন।