সোনম অভিনীত ছবি অস্কার লাইব্রেরিতে

সুপ্রভাত ডেস্ক

অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের লাইব্রেরিতে স’ান পেতে চলেছে ভারতীয় ছবি। তাও আবার এমন একটি ছবি যা সমপ্রতি মুক্তি পেয়েছে। ছবির নাম ‘এক লড়কি কো দেখা তো অ্যায়সা লাগা’। ১ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। সমকামিতা নিয়ে তৈরি হয়েছে ছবিটি। অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের কোর কালেকশনে স’ান পেয়েছে ছবির চিত্রনাট্য। জিনিউজ পত্রিকার খবরে বলা হয়, সোনম কাপুর জানিয়েছেন, এটি তার অন্যতম প্রিয় ছবি। অস্কার লাইব্রেরির জন্য ছবিটি নির্বাচিত হওয়ায় তিনি অবশ্যই খুশি। কিন’ তার চেয়েও বেশি আনন্দিত এই কারণে যে এটি তার সঙ্গে তার বাবার প্রথম অভিনীত ছবি। ছবির মেসেজ সবার জানা দরকার। ছবির গল্প সুইটি চৌধুরীকে নিয়ে। পাঞ্জাবের এক ধনী কাপড় ব্যবসায়ীর মেয়ে। একদিন সুইটির সঙ্গে দেখা হয় সাহিল মির্জার। সুইটির প্রেমে পড়ে সাহিল। কিন’ সুইটি সাহিলকে ভালবাসে না। এরপর কী হয়? আর পাঁচটা গল্পে দেখা যায় মেয়ের মন পেতে এবার ছেলে নিজেকে মেয়েটির উপযুক্ত করে তুলতে চায়। ভাল চাকরি পেলেই মেয়ে তার প্রেমে পড়ে যাবে। মেয়ের বাড়িতেও কোনও সুবিধা করবে না। এই গল্প এখন বস্তাপচা। শেলি চোপড়া তাই সেই ঝুঁকিই নেননি। গল্প এরপর থেকে তিনি সাজিয়েছেন অন্যভাবে। প্রেম ছবিতে অবশ্যই উপসি’ত। কিন’ অন্যভাবে। সুইটির বিয়ে ঠিক করে বাবা বলবীর। পাত্রের নাম সাহিল। মুসলিম বলে অনেকে আপত্তি তুলেছিল। কিন’ তাদের পরিবার একটাই উদার, যে হিন্দু-মুসলিম তাদের কাছে কোনও বাধা নয়। সাহিলকে মেনে নিতে তাদের কোনও আপত্তি নেই। কিন’ ওরা যে বন্ধু। তাই সাহিলের পরিবর্তে আসে অন্য এক ছেলে। সেও সুইটির প্রেমে পাগল। কিন’ সুইটি তো নয়। সে অন্য একজনকে ভালবাসে। সেই মানুষটি সাহিল নয়। এমনকি কোনো ছেলেও নয়। একটি মেয়েকে মন দিয়ে ফেলেছে সুইটি। সাহিলকে সে সব কথা বলেছে। সুইটির জীবনে এই একটাই গোপন কথা। কিন’ বাড়ি থেকে মেনে নিচ্ছে না সুইটির প্রেম। হিন্দু-মুসলিম সম্পর্ক মেনে নেওয়া যায়। কিন’ সমকামী! খবর পরিবর্তন’র।