সৈয়দ আহমদ উল্লাহ্ মাইজভাণ্ডারীর (ক.) ওরস কাল

বিজ্ঞপ্তি

উপমহাদেশের প্রখ্যাত অলিয়ে কামেল, ত্বরিকা-ই-মাইজভাণ্ডারীয়ার প্রবর্তক গাউসুল আযম হযরত মাওলানা শাহ্সূফি সৈয়দ আহমদ উল্লাহ্ মাইজভাণ্ডারী (ক.) এর ১১২তম ওরস শরিফ আগামীকাল মঙ্গলবার মাইজভাণ্ডার শরিফ গাউসিয়া হক মন্জিলে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে উদযাপিত হবে। বাদ ফজর রওজা শরিফ গোসল ও গিলাফ চড়ানোর মাধ্যমে উরস শরিফের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। রাত সাড়ে বারোটায় কেন্দ্রীয় মিলাদ মাহ্ফিল ও আখেরি মোনাজাত হবে। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন গাউসিয়া হক মন্জিলের সাজ্জাদানসীন, আওলাদে গাউসুল আযম শাহ্ সুফি সৈয়দ মোহাম্মদ হাসান মাইজভাণ্ডারী (মাদ্দাজিল্লুহুল আলী)।
ওরস শরিফ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে মাইজভাণ্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি কেন্দ্রীয় পর্ষদ সকল প্রস’তি শেষ করেছে। এছাড়াও উরস্ উপলক্ষে ‘শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্ট’
২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এ পর্যন্ত- যাকাত অর্থ বিতরণ, সেমিনার, আন্তঃধর্মীয় সম্প্রীতি সম্মিলন, উলামা সমাবেশ, ‘আলোর পথে’ আয়োজিত মহিলা মাহফিল, ‘দি মেসেজ’ আয়োজিত মহিলা মাহফিল, শিক্ষক সমাবেশ, ১১তম শিশু কিশোর সমাবেশ, মসজিদে মসজিদে কুরআন তেলাওয়াত ও মিলাদ মাহফিল ও মেধাবৃত্তি প্রাপ্তদের মাঝে বৃত্তির অর্থ প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। এরই অংশ হিসেবে আজ রয়েছে ফটিকছড়ি উপজেলার ৫৪টি এতিমখানার অধিবাসীদের জন্যে একবেলা খাবার প্রদান এবং ওরসের দিন ‘ইসলামের ইতিহাস ও ঐতিহ্য সম্বলিত দুর্লভ চিত্র ও ভিডিও প্রদর্শনী’, বিভিন্ন উপদেশমূলক প্রচারণা, অস’ায়ী ওযুখানা ও টয়লেট এবং ন্যায্যমূল্যে খাবারের দোকান।
এদিকে বিশ্বের অন্যতম মহাসম্মিলন এ ওরস শরিফে যোগ দিতে ইতোমধ্যে এশিয়া, ইউরোপ ও আরবের বিভিন্ন রাষ্ট্রসহ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে বিপুলসংখ্যক ভক্ত-জায়েরিনের আসতে শুরু করেছেন। আশেক ভক্তের সালাত আদায়, মিলাদ, দরূদ ও কুরআন শরিফ পাঠ এবং আল্লাহ্-আল্লাহ্ জিকিরের ধ্বনিতে মুখরিত দরবার প্রাঙ্গণ। ভক্ত-জায়েরিনদের ইবাদত-বন্দেগি ও যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন থেকে নেওয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস’া। ওরস্ শরিফ উপলক্ষে বিআরটিসি’র স্পেশাল বাস সার্ভিস আজ (২২ জানুয়ারি) থেকে চালু করা হয়েছে। আগত মেহমানদের স্বাগত জানানোর জন্য নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলোকে বর্ণিল সাজে সাজিয়ে লাগানো হয়েছে তোরণ, ফেস্টুন, ও ব্যানার।