‘সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবে যানজটমুক্ত হচ্ছে না নগরী’

নিজস্ব প্রতিবেদক গ্ধ

সু্ষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবেই নগরী যানজট মুক্ত হচ্ছে না বললেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। পুলিশের ভূমিকা আরো যথাযথ হলে যানজট সমস্যার অনেকাংশে সমাধান হতে পারতো বলেও মত প্রকাশ করেন মেয়র।
বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি। ‘চট্টগ্রামে যানজট কমানো যায় কীভাবে’ শিরোনামে এই গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে গণমাধ্যম ও গবেষণা কেন্দ্র ‘নান্দনিক’।
মেয়র নাছির বলেন, নগরীর যানজট নিরসনে প্রশাসনের যেমন ভূমিকা আছে তেমনি নগরবাসীকেও এই সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। শহরের অনেক জায়গায় ফুটপাত থাকলেও মানুষ তা ব্যবহার না করে রাস্তার ওপর হাঁটছে, যেখানে সেখানে গাড়ি পার্ক করছে। প্রাথমিক স্তরে পাঠ্যসূচিতে ট্রাফিক আইন সম্পর্কে নানা তথ্য সংযুক্ত করা উচিত বলে মত দেন মেয়র।
অনুষ্ঠানে নিরাপদ সড়ক চাই চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতি এস.এম. আবু তৈয়ব বলেন, গন্তব্যে আগে যাবার অসুস’ প্রতিযোগিতা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সেবামূলক সংস’ার প্রতিনিধিদের নিয়ে যানজট নিরসনে একটি শক্তিশালী টাস্কফোর্স গঠনের জন্য মেয়রের কাছে অনুরোধ জানান তিনি।
প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন মজুমদার বলেন, যানজট সমস্যা থেকে পরিত্রান পেতে হলে পুরো ট্রাফিক ব্যবস’াটি নতুন করে সাজাতে হবে। পরিকল্পিতভাবে বিন্যাস করতে না পারলে ট্রাফিক সমস্যার সমাধান কঠিন হবে।
স’পতি আশিক ইমরান বলেন, গণপরিবহন ব্যবস’াকে কোনোভাবেই শৃংখলার মধ্যে আনা যাচ্ছেনা। যেখানে সেখানে লোক ওঠানামার কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।
সমাজকর্মী জেসমিন সুলতানা পারু বলেন, যানজট অন্যতম সমস্যা। প্রতিদিন মূল্যবান কর্মঘণ্টার অপচয় হচ্ছে যানজটের কারণে। এজন্য প্রশাসনের সুষ্ঠু তদারকির অভাব রয়েছে।
এলবিয়ন গ্রুপের চেয়ারম্যান রাইসুল উদ্দিন সৈকত বলেন, সিগনাল বাতিসহ ট্রাফিক ব্যবস’া অটোমেশনে নিয়ে আসতে পারলে শহরের যানজট অনেকটা কমানো যাবে।
নান্দনিকের সভাপতি ও বেসরকারি টেলিভিশন মাছরাঙার ব্যুরো প্রধান তাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপসি’ত ছিলেন জামালখান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, কবি খালিদ আহসান, সামাজিক সংগঠন তারুণ্যের সভাপতি আবদুর রশিদ লোকমান, পিটুপি ফ্যামিলির নির্বাহী পরিচালক মো.সাজ্জাদ প্রমুখ।