চট্টগ্রামে সুজন সম্পাদক বদিউল আলম

সুষ্ঠু নির্বাচন না হলে পরিণাম হবে ভয়াবহ

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে বর্তমানে নির্বাচন নিয়ে অচলাবস’া বিরাজমান বলে মনে করেন সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সংসদ চলমান থাকবে কিনা- এটা একটি প্রশ্ন। এক দল বলছে, নির্বাচনের পরিবেশ অনুকূলে, আরেক দল বলছে প্রতিকূলে। যারা এক সময় তত্ত্বাধায়ক সরকারের বিরোধিতা করেছিল, তারা এখন এর পক্ষে। আবার যারা এর পক্ষে কথা বলেছিল, তারা এখন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিপক্ষে।’
গতকাল শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সুলতান আহমেদ মিলনায়তনে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। সুজনের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিকল্পনা সভায় যোগ দিতে চট্টগ্রামে আসেন বদিউল আলম মজুমদার।
সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয় উল্লেখ করে সুজন সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে অনিয়মতান্ত্রিকতার পথ প্রশস’ হয়। যা সহিংসতা সৃষ্টি করবে। সুষ্ঠু নির্বাচন না হলে তার পরিণাম হবে ভয়াবহ। বিতর্কিত নির্বাচন হলে ক্ষুদ্ধ লোকের সংখ্যা বাড়বে। ক্ষুদ্ধ লোককে অপরাধে উদ্বুদ্ধ করা সহজ হয়।’
নিজেদের পছন্দের ব্যক্তির অধীনে নির্বাচন এবং নিজেদের স্বার্থেই ২০০৬ সালে বিএনপি সংবিধান পরিবর্তন করেছিল মন্তব্য করে বদিউল আলম বলেন, ‘১৯৯৬ সালে খালেদা বলেছিলেন সংবিধানে তত্ত্ব্বাবধায়ক সরকার নেই। ১৯৯৬ সালে এক তরফা নির্বাচন হলো। ২০০৭ সালে এক-এগারো আসল। ২০১৪ সালে আরেকটি এক তরফা নির্বাচন হলো। এখনো নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে অচলাবস’া বিরাজমান। এখনো অসি’তিশীলতা বিরাজমান। অসি’তিশীলতার পরিণাম অস্বাভাবিক। এ অসি’তিশীলতা দিন দিন ভয়াবহ হচ্ছে। আরেকটি বিতর্কিত নির্বাচন হলে ভয়াবহ পরিণতির দিকে অগ্রসর হবে দেশ।’
বর্তমান সংসদের কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, ‘২০১৪ সালে নেতিবাচক নির্বাচনের কারণেই সহিংসতা হয়েছিল। সহিসংতা কোনভাবেই কাম্য নয়। সব ক্ষমতা কেন্দ্রীভূত হওয়ার পরিণতি মঙ্গলজনক হবে না। বিগত সময়ে আমরা এক তরফা নির্বাচন দেখেছি। সবগুলো সরকারই ডানপনি’ ও উগ্রপনি’দের পৃষ্ঠপোষকতা করেছে। বর্তমান সরকারও সেদিকেই যাচ্ছে।
বর্তমানে ‘উন্নয়ন বনাম গণতন্ত্র’- বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘যেন ভাত-কাপড়ই সব। মানুষ শুধু ভাত-কাপড় দিয়ে চলতে পারে না। নির্বাহী বিভাগ, আইনসভা ও বিচার বিভাগ- একে অপরের ওপর নজরদারি করবে, যাতে ক্ষমতা কেন্দ্রীভূত না হয়।’
সুজন চট্টগ্রাম বিভাগীয় সম্পাদক ও ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির (ইডিইউ) উপাচার্য ড. মুহাম্মদ সিকান্দার খান, সদস্যসচিব অ্যাডভোকেট আখতার কবির চৌধুরী, প্রকৌশলী সুভাষ বড়ুয়া, নারীনেত্রী রেহানা বেগম রানু প্রমুখ মতবিনিময়কালে উপসি’ত ছিলেন।