মহামায়া রাবার ড্যাম

সুফল পাচ্ছে কৃষক

রাজু কুমার দে, মিরসরাই

মিরসরাইয়ে পাহাড়ি পানি বাধ দিয়ে গড়ে তোলা রাবার ড্যামের সুফল পাচ্ছে কৃষক। এক সময় মিরসরাইয়ের ৮ নম্বর দূর্গাপুর ও ৯ নম্বর মিরসরাই সদর, ৭ নম্বর কাটাছরা, ১০ নম্বর মিঠানালা ইউনিয়নের বোরো চাষ করতে পারতো না কৃষকরা। শুষ্ক মৌসুমে পানি সংকট থাকায় প্রায় ৪শ হেক্টর জমি অনাবাদি পড়ে থাকতো। কিন’ সরকার ২০১০ সালে মিরসরাইয়ে দূর্গাপুর ইউনিয়নে মহামায়া ছড়ায় বাধ দিয়ে গড়ে তোলে রাবার ড্যাম। উদ্দেশ্য ছিল পাহাড়ি পানি আটকে রেখে রাবার ড্যামের মাধ্যমে শুষ্ক মৌসুমে চাষাবাদে পানির যোগান দেয়া।
অন্যদিকে ওইসব এলাকাকে বন্যার হাত থেকে রক্ষা করা। বর্তমানে সরকারের সেই উদ্দেশ্য সফল হয়েছে। একদিকে শুষ্ক মৌসুমে অনাবাদি জমি চাষ হচ্ছে। অন্যদিকে মহামায়া এলাকায় গড়ে উঠেছে আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র। মিরসরাই উপজেলা সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কাজী নুরুল আলম জানান, মিরসরাইয়ে ৪টি ইউনিয়নের কিছু অংশ বোরো আবাদের বাইরে ছিল। রবি মৌসুমে এসব এলাকায় চাষাবাদ হতো না। কিন’ বর্তমানে মহামায়া রাবার ড্যামের পানি দিয়ে ওই ৪ ইউনিয়নের প্রায় ৪শ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ করা হচ্ছে।
অন্যদিকে ১শ৫০ হেক্টর জমিতে সবজি চাষ করা হয়েছে। স’ানীয় দূর্গাপুর ইউনিয়নের কৃষক সোবাহান জানান, এক সময় দূর্গাপুর ইউনিয়নে পানির অভাবে বোরো আবাদ করতে পারতো না কৃষকরা। এছাড়া বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ি ঢলে বিস্তৃণ এলাকা প্লাবিত হতো। কিন’ সরকার মহামায়া এলাকায় বাধ দিয়ে রাবার ড্যাম তৈরি করায় এখন বোরো আবাদ করতে পারছি। বন্যার থেকে রক্ষা পাচ্ছে ফসল ও ঘর বাড়ি। জানা গেছে, ২০১০ সালের ২৯ ডিসেম্বর মহামায়া রাবার ড্যাম সেচ প্রকল্প উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ মহামায়া সেচ প্রকল্প পরিদর্শনে আসেন তৎকালীন পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এবং পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। তিন মন্ত্রী ইঞ্জিন চালিত বোডে চড়ে মহামায়া লেকের ঝর্ণাসহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। এসময় তিন মন্ত্রী মহামায়াকে সেচ প্রকল্পের পাশাপাশি একটি আধুনিক পর্যটন এলাকায় রুপান্তরিত করার ঘোষনা দেন। দূর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান বিপ্লব বলেন, মহামায়া রাবার ড্যামের কারণে সবচেয়ে বেশি উপকৃত হচ্ছে আমার ইউনিয়নের মানুষ।
পাশাপাশি ওই পানি দিয়ে ৪টি ইউনিয়নে চাষাবাদ হচ্ছে। বন্যার হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে স’ানীয়রা। মিরসরাইয়ে সংসদ সদস্য সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমার প্রস্তাবে মহামায়া এলাকায় বাধ নির্মাণ করেছে বর্তমান সরকার। যার সুফল মিরসরাইবাসী পাচ্ছে। আমি যতদিন বেঁচে থাকবো মিরসরাই তথা চট্টগ্রামের উন্নয়নে কাজ করে যাবো।