আমীর খসরুকে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফের ‘চ্যালেঞ্জ’

সাহস থাকলে আমাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির স’ায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে ‘চ্যালেঞ্জ’ ছুঁড়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সাবেক সভাপতি আমীর খসরুকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘আমীর খসরু মাহমুদ, যদি সাহস থাকে চট্টগ্রামে বিএনপির যেসব নেতাকর্মীরা আছে তাদেরকে রাস্তায় নামতে বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে বলেন।’

গতকাল নগরীর মুসলিম ইনস্টিটিউট হলে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়।
নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রসঙ্গ টেনে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ বলেন, ‘বিএনপি চেষ্টা করেছিল ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে কোমলমতি ছেলেদের উস্কে দিয়ে কিছু করার জন্য। তাদের তো সাহস নেই। আরে বেটা কোমলমতি ছেলেদের নিয়ে কেন রাজনীতি করছস, যদি সাহস থাকে তোরা নিজেরাই রাজপথে আন্দোলন কর। কিন’ সে সাহস তাদের নেই।’
চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও মিরসরাইয়ের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন,
‘আমরাও তো আন্দোলন-সংগ্রাম করেছি। ১৯৮০ সালে আমি, মান্নান ভাই ও আবু ছালেহ’র নেতৃত্বে নিউমার্কেট মোড়ে সরকারবিরোধী মিছিল করেছি। একজন মন্ত্রী দাঁড়িয়ে থেকে সন্ত্রাসীদের দিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমাদের তিনজনকে আঘাত করা হয়। আমার পায়ের রগ কেটে দেওয়া হয়।’
এসময় চট্টগ্রামের বিএনপি নেতৃবৃন্দের উদ্দেশে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ বলেন, ‘আমাদের মতো সে সাহস থাকলে আসো, মাঠে নামো। মিছিল করো, আন্দোলন করো।’
ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় আসলে ঢাকা ও চট্টগ্রামে পাতাল রেল হবে। ঢাকা-চট্টগ্রামে বুলেট ট্রেন চালু করা হবে। যে ট্রেনে করে এখন ঢাকায় যেতে ৫ থেকে ৬ ঘন্টা লাগে, তখন বুলেট ট্রেনে দেড়
থেকে দুই ঘন্টার মধ্যে পৌঁছা যাবে।’

সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘ষড়যন্ত্রকারীরা ব্যর্থ হয়েছে কিন’ তাদের ষড়যন্ত্র থেমে নেই। রাত্রে তারা বিভিন্ন জায়গায় দেশি-বিদেশিদের নিয়ে বসে এবং নৈশ ভোজের আয়োজন হয়। এরকম নৈশ ভোজ ২০১৩ সালে, ২০১৪ সালে ও ২০১৫ সালেও হয়েছিল। ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে বিএনপিকে বলা হয়েছিল, নির্বাচন হলেও তিন মাসের মাথায় সরকার পড়ে যাবে। কিন’ সরকার পড়ে নাই। আল্লাহর রহমতে সরকার জনগণের সমর্থন নিয়ে ৫ বছর টিকে আছে।’
রাঙ্গুনিয়ার সংসদ সদস্য ড. হাছান মাহমুদ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘দল পরপর দুইবার রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকার কারণে আমাদের অনেকের মধ্যে আলস্য এসেছে। আলস্য করার কোনো সুযোগ নেই। কেননা বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসলে এদেশ কারবালার প্রান্তর হবে। নির্বাচনের মাত্র কয়েক মাস বাকি। তাই বিএনপি-জামায়াতকে রুখতে সরকারের উন্নয়ন বার্তা জনগণের সামনে আমাদের তুলে ধরতে হবে।’
উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের আসলে আন্দোলন করার ক্ষমতা নেই। তারা ফেসবুকের মাধ্যমে ফেক আন্দোলন করতে পারবে।’
সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ মঈনুদ্দিন।