জমি নিয়ে বিরোধের জের

সাতকানিয়ায় এক ব্যক্তিকে অপহরণ গ্রেফতার ২

নিজস্ব প্রতিনিধি, সাতকানিয়া

সাতকানিয়ায় জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের একজনকে অপহরণ করে নির্জন এলাকায় নিয়ে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে অপহৃত নুরুল আলম বাদি হয়ে সাতকানিয়া থানায় মামলা দায়ের করলে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে। ঘটনাটি ঘটে গত শনিবার রাতে উপজেলার ছদাহা-কেওচিয়া উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, উপজেলার দক্ষিণ ঢেমশা নাজির পাড়া ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা মামলার বাদি নুরুল আলমের পিতা শামসুল ইসলামের সাথে আপন ভাই মো. নাজিম উদ্দিনের ভিটেবাড়ির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে বিগত ৮ আগস্ট শামসুল ইসলাম ও ভাই নাজিম উদ্দিনের মধ্যে ঝগড়া হয়। বিষয়টি মীমাংসার জন্য অপহৃত নুরুল আলম এলাকার গণ্যমান্যদের নিয়ে একটি সালিশী বৈঠকের ব্যবস’া গ্রহণ করেন। এতে বিবাদিরা নুরুল আলমের ওপর ক্ষিপ্ত হন। নুরুল আলম বান্দরবান সরকারি কলেজের সম্মান তৃতীয়বর্ষের ছাত্র। ঘটনার দিন বিকালে বান্দরবান থেকে ফিরে কেরানিহাট এলাকা থেকে

সিএনজি অটোরিকশাযোগে বাড়ি যাওয়ার পথে আসামি মো. নাজিম উদ্দিন ও মোহাম্মদ রুবেল আলমসহ আরো কয়েকজন মোটর সাইকেলযোগে সিএনজি’র গতিরোধ করে। নাজিম ও রুবেল সিএনজিতে ওঠে। অন্যরা মোটরসাইকেল নিয়ে সামনে এগুতে থাকে। সিএনজি অটোরিকশা ছদাহা-কেওচিয়া উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায় পৌঁছালে চালককে বাধ্য করে বিদ্যালয় মাঠে নির্জন এলাকায় নিয়ে যায়। বিদ্যালয় মাঠে নিয়ে গাড়ি থেকে নুরুল আলমকে নামিয়ে মো. নাজিম উদ্দিন ও মোহাম্মদ রুবেল আলমসহ অন্যরা এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে। আলমের চিৎকারে এলাকার লোকজন বিষয়টি টের পায়। স’ানীয়রা সংঘবদ্ধ হয়ে চারদিকে ঘিরে ফেলে। অবস’া বেগতিক দেখে কয়েকজন মোটর সাইকেল নিয়ে পালিয়ে গেলেও নাজিম ও রুবেলকে জনতা হাতেনাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। আসামি মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন দক্ষিণ ঢেমশা নাজির পাড়া ৯ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার মৃত আবদুল গফুরের ছেলে এবং মোহাম্মদ রুবেল আলম ছদাহা কাজীর পাড়া এলাকার কালু মিয়ার ছেলে।

সাতকানিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রফিকুল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পৈতৃক সম্পত্তির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে বিরোধ থেকে এ ঘটনার উৎপত্তি। ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত থাকায় গ্রেফতারকৃত ২ জনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।