এফবিসিসিআই নির্বাচন

সভাপতি পদে ফজলে ফাহিমকে চট্টগ্রামের ৮ চেম্বারের সমর্থন

বিজ্ঞপ্তি

দেশের ভারসাম্যপূর্ণ উন্নয়ন প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখতে এবং বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের বিপুল সম্ভাবনা কাজে লাগাতে এ অঞ্চলে ব্যাপক শিল্পায়নের ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন ব্যবসায়ী নেতারা। তারা চট্টগ্রাম অঞ্চলের পর্যটন শিল্প এবং চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেছেন। নারী উদ্যোক্তাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা এবং পাবর্ত্য জেলাগুলোর অর্থনৈতিক উন্নয়নের ওপরও গুরুত্ব দিয়েছেন তারা ।
গতকাল ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সাথে বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের ৮টি চেম্বারের এক সভায় নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। এফবিসিসিআই সিনিয়র সহসভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমের সভাপতিত্বে নগরীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত সভায় এফবিসিসিআই পরিচালকবৃন্দ এবং চট্টগ্রাম অঞ্চলের চেম্বারগুলোর সভাপতিগণ অংশ নেন।
সভায় চট্টগ্রাম অঞ্চলের চেম্বারগুলোর সভাপতিরা বিগত বছরগুলোতে শেখ ফজলে ফাহিমের সৎ, দূরদর্শী, বিচক্ষণ ও দায়িত্বপূর্ণ ভূমিকার কারণে এফবিসিসিআইয়ের ২০১৯-২০২১ মেয়াদকালের নির্বাচনে তাকে সভাপতি পদে সমর্থন ব্যক্ত করেন। উল্লেখ্য, এবছর এফবিসিসিআই সভাপতি চেম্বার গ্রুপ থেকে নির্বাচিত হবেন।
সভায় শেখ ফজলে ফাহিম বর্তমান সরকারের ভিশন ২০৪১ অনুসরণে এফবিসিসিআইয়ের ভিশন ২০৪১-এর উল্লেখ করে বলেন, বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক নানা বিষয়ে নীতিগত সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে ‘এফবিসিসিআই ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিক পলিসি প্ল্যানিং অ্যান্ড ডিজাইন’ প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে। তিনি শীঘ্রই ‘এফবিসিসিআই বিশ্ববিদ্যালয়’ প্রতিষ্ঠার কথা জানান, যেখানে
বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তিকে গুরুত্ব দিয়ে শিক্ষাকাঠামো তৈরি করা হবে। তিনি বলেন এফবিসিসিআইয়ের উদ্যোগে প্রকৌশল ও কারিগরি প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির লক্ষ্যে ‘এফবিসিসিআই ইনস্টিটিউট’ প্রতিষ্ঠার প্রক্রিয়া চলছে।
এফবিসিসিআই এর সাবেক প্রথম সহসভাপতি ও চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বারের সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ‘বিশেষায়িত ব্যাংক’ প্রতিষ্ঠা, নারী উদ্যোক্তাদের সহায়তায় শিল্প পার্ক স’াপন এবং নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ডাটা ব্যাংক প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান।
এফবিসিসিআই এর সাবেক সহসভাপতি ও চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মাহবুবুল আলম তার বক্তব্যে শেখ ফজলে ফাহিমের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেন এবং তার নেতৃত্বে এফবিসিসিআই একটি সুনির্দিষ্ট ভিশন নিয়ে কাজ করে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন।
চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন চেম্বারের সভাপতি খলিলুর রহমান বলেন, ব্যবসায়ী নীতিমালা প্রণয়নে ব্যবসায়ীদের মতামতকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করতে হবে। তিনি শেখ ফজলে ফাহিমের নেতৃত্বে এফবিসিসিআই বেসরকারি খাতের উন্নয়নে আরো কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেন।
কক্সবাজার চেম্বারের সভাপতি আবু মোর্শেদ চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রাম অঞ্চলের বহুমাত্রিক পর্যটন উন্নয়নে সরকার কাজ করছে, এ কার্যক্রম আরো জোরদার করা প্রয়োজন।
সভায় আরও বক্তব্য দেন খাগড়াছড়ি চেম্বারের সভাপতি কংজরী চৌধুরী, রাঙামাটি চেম্বার সভাপতি বেলায়েত হোসেন ভূঁইয়া, বান্দরবান উইমেন চেম্বার সভাপতি লালছানী লুসাই, চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বারের সিনিয়র সহসভাপতি আবিদা মোস্তফা, উইমেন চেম্বারের সহসভাপতি ডা. মুনাল মাহবুব, নাসিব এর সভাপতি নুরুল গণী শোভন, বান্দরবান চেম্বারের সহসভাপতি লক্ষীপদ, চট্টগ্রাম চেম্বারের প্রাক্তন পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ্ ও বাংলাদেশ শিপিং এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালক ওসমান গণি।