সন্দ্বীপে ইউপি সদস্যকে ধরতে গিয়ে গোলাগুলি অস্ত্র উদ্ধার

সুপ্রভাত ডেস্ক

সন্দ্বীপে দিনেদুপুরে ‘গোলাগুলির’ পর এক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ; উদ্ধার করা হয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র-গুলি। গতকাল দুপুরে উপজেলার মগধরা ইউনিয়নের প্যালিশার বাড়িতে এ গোলাগুলির ঘটনায় সন্দ্বীপ থানার পাঁচ পুলিশও আহত হয়েছেন বলে চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সীতাকু- সার্কেল) শম্পা রানী সাহা জানিয়েছেন। গ্রেফতার জাহিদ সরোয়ার শিমুল (৩২) মগধরা ইউনিয়নের পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। খবর বিডিনিউজ’র।
তাকে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী বলেছেন সন্দ্বীপের ওসি মো. শাহাজাহান, যিনি নিজেও অভিযানে আহত হয়েছেন। আহত পুলিশের অন্য সদস্যরা হলেন- পরিদর্শক (অপারেশন) মো. সোহরাওয়ার্দী, এসআই হেলাল খান, কনস্টেবল রবিউল আলম ও নাঈম মিয়া। পুলিশ কর্মকর্তা শম্পা বলেন, দুপুরে শিমুলের বাড়িতে অভিযানে যায় পুলিশ। এসময় সেখানে থাকা তার সহযোগীরা পুলিশকে লড়্গ্য করে গুলি ছুড়লে পুলিশও জবাব দেয়।
‘গোলাগুলির পর সহযোগীরা পালিয়ে গেলেও শিমুলকে গ্রেফতার করা হয়।’
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শম্পা বলেন, অভিযানে একটি দোনলা বন্দুক, দুইটি একনলা বন্দুক, দুইটি এলজি, ১৯টি কার্তুজ, চায়নিজ রাইফেলের দুইটি গুলি, আটটি ছুরি ও একটি রাম দা উদ্ধার করা হয়।
ওসি শাহাজাহান জানান, দুই পড়্গের মধ্যে শতাধিক রাউন্ড গোলাগুলি হয়েছে। এর মধ্যে পুলিশ ২৩ রাউন্ড গুলি ছুঁড়েছে।