সিএমপি’র মহড়া

সন্ত্রাসী হামলা থেকে রক্ষা ক্রিকেট খেলোয়াড়দের!

নিজস্ব প্রতিবেদক

সন্ত্রাসী হামলা থেকে ক্রিকেট খেলোয়াড়দের কীভাবে উদ্ধার করতে হয় তা নিয়ে গতকাল রোববার জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়াম এলাকায় একটি মহড়া করেছে পুলিশ। আগামী ২৪ ও ২৬ অক্টোবর জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের দুইটি ওয়ান ডে ম্যাচ। ২২-২৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম টেস্ট ম্যাচ। আজ সোমবার জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল এবং আগামী ১৫ নভেম্বর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল চট্টগ্রাম আসবে। মহড়ায় নানা কসরত উপস’াপন করে পুলিশ।
দেখা যায়, কাজির দেউড়ির একটি হোটেল থেকে ক্রিকেট খেলোয়াড়দের নিয়ে একটি বাস ছুটছে স্টেডিয়ামের দিকে। এটির সামনে-পেছনে ও দুই পাশে নিরাপত্তা দিয়ে গাড়িটিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। স্টেডিয়ামের দরজায় পৌঁছা মাত্রই সন্ত্রাসীরা সাউন্ড গ্রেনেড ফাটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করল। এসময় রুদ্ধশ্বাস অভিযানে সন্ত্রাসী হামলা থেকে রক্ষা করলো খেলোয়াড়দের। এরপর নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা দিয়ে তাদের বহনকারী বাসটি নিয়ে যায় জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে।
গতকাল রোববার বেলা ১১টায় থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এ মহড়ায় অংশ নেয় পুলিশের একাধিক টিম। পরবর্তীতে ক্রিকেটারদের আবারও মাঠ থেকে হোটেলে নিয়ে আসার দৃশ্যও মহড়ায় দেখানো হয়। মহড়ায় ছিল পুলিশের বিশেয়ায়িত ইউনিট সোয়াত, বোমা ডিসপোজাল টিম, কুইক রেসপন্স টিম ছাড়াও সাদা পোশাকের পুলিশ সদস্যরা। এর আগে মহড়ার শুরুতে দেখানো হয়-খেলোয়াড়রা হোটেল রেডিসন ব্লু থেকে নেমে গাড়িতে উঠছেন। এসময় হোটেল থেকে নামার জায়গার দুই পাশেই ছিল সোয়াত সদস্যদের সতর্ক অবস’ান। ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল পুলিশের অন্য সদস্যরাও। পরে তাদের গাড়ি ছুটে চলে স্টেডিয়ামের দিকে। মহড়ায় শতাধিক পুলিশ সদস্য অংশ নেন। ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার বিষয়ে সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) মাসুদ উল হাসান বলেন, ‘খেলোয়াড়দের সার্বিক নিরাপত্তায় সার্বক্ষণিক পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা থাকবে।