শিল্পকলায় উচ্চারণের নাটক ‘আর কত দিন’

নিজস্ব প্রতিবেদক

উচ্চারণ নাট্য সম্প্রদায় ১২০ তম মঞ্চায়ন নাটক ‘আর কত দিন’ গতকাল চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে মঞ্চস’ হয়। বাসুদেব বসু রচিত, নাট্যজন শামীম আহমেদ নির্দেশিত উক্ত নাটকে অচিনপুর গ্রামের প্রভাবশালীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ গ্রামবাসীদের কাহিনী উঠে এসেছে প্রতিবাদী এক কন্ঠস্বর হয়ে। তারা মন্ডল ও তার অনুচরদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াঁয়। যেখানে পিতা পুত্রের সম্পর্ক হয়ে উঠে জটিল এক সমীকরণে। যার জন্য অবশেষে হত্যার মত পথ বেঁচে নেয়। ফলে শান্তি ফিরে আসে গ্রামে।
আর নাটকের কাহিনী আবর্তিত হয়েছে ঠিক এইভাবে। অচিনপুর গ্রামের প্রভাবশালী মন্ডল ও তার অনুচররা নিরীহ গ্রামবাসীদের উপর অত্যাচারের জাল বিস্তার করেছিল বহুদিন ধরে। দিনদিন তাদের অত্যাচারের মাত্রা এতই বেড়ে যায়, নিরীহ গ্রামবাসী এমনকি মন্ডল এর পুত্র কন্যাও নিষ্ঠুরতা থেকে রেহাই পাচ্ছিলো না। তাই একদিন গ্রামবাসী প্রতিবাদী হয়ে উঠে।
অবশেষে অনেক ঘাত প্রতিঘাতের বিনিময়ে পুত্রের হাতে পিতার মৃত্যুর মধ্য দিয়ে সত্যের জয় হয়। হবু পাগলা ও নির্যাতিত গ্রামবাসী নতুনভাবে বাঁচার স্বপ্ন দেখে এবং অশান্তির কালস্রোত বিলীন হয়ে শান্তি ফিরে আসে অচিনপুর গ্রামে।
উক্ত নাটকে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন শামীম আহমেদ, জামিল, মোর্শেদ, মামুন (আহাদ), সাব্বির, তুষার, খোকা, তন্ময় ও রাজীব।
আলোক প্রক্ষেপন ছিলেন নোমান। সংগীত পরিচালনা করেন নাফিজা শামীম প্রাপ্তি।
নাটক শেষে নাট্যজন শামীম আহমেদ আহমেদ নাটকের দর্শক উপসি’তি নিয়ে এক কথোপকথনে বলেন, আমরা নাটককে দর্শকের কাছে পৌঁছাতে চাই। নাটকের অর্থ যদি দর্শকের বোধগম্য না হয় তবে সে নাটকের কোনো মানে বহন করবে বলে আমি মনে করি না। তাই মানুষের সঙ্গে নাটকের অর্থকে সম্পৃক্ত হতে হবে। নাটক দেখতে আসা এক দর্শকের মন্তব্য হলো মঞ্চ নাটকের যে আলাদা আবেদন রয়েছে তা টেলিভিশন নাটকে কিন’ পুরোপুরি অনুপসি’ত। টেলিভিশন নাটকে কাহিনী ও দৃশ্যায়নের ভিন্নতা যে রকম থাকে, মঞ্চ নাটকে ভিন্নতা থাকে অন্য রকম। বিভিন্ন থিয়েটার গ্রুপের পরিবেশনায় একই নাটকের উপস’াপনাতেও থাকে ভিন্নতা। আর এটিই মঞ্চ নাটকের মূল আকর্ষণ। সময় সুযোগে তাই মঞ্চে নাটক দেখতে চলে আসি।