চবিতে চার ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা

শিথিল করা হয়েছে আবেদন যোগ্যতা

চবি সংবাদদাতা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ সেশনে স্নাতক (অনার্স) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা চারটি ইউনিটে নেয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ লাঘব করতে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। রোববার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কমিটির এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
এছাড়াও আগামী ২৬ থেকে ৩০ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ করা হয়। অন্যদিকে এবাররের এসএইচসি পরীক্ষায় ফলাফল বিপর্যয়ের কারণে ভর্তি আবেদনের যোগ্যতাও শিথিল করা হয়েছে। তবে ভর্তি আবেদন প্রক্রিয়ার বিষয়টি পরে জানানো হবে।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, বিজ্ঞান বিভাগে ‘এ’ ইউনিট, মানবিকে ‘বি’ ইউনিট, ব্যবসায়ে ‘সি’ ইউনিট এবং বিভাগ পরিবর্তনে ‘ডি’ ইউনিটের অধীনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে ‘এ’ ও ‘সি’ ইউনিটের যোগ্যতায় শিক্ষার্থীদের এসএসসি ও এইচএসসিতে আলাদাভাবে নূন্যতম ৩.০০ পয়েন্টসহ উভয়টিতে সমন্বিতভাবে ৬.৫০ পেতে হবে। এছাড়া ‘বি’ ইউনিটের যোগ্যতায় এসএসসি ও এইচএসসিতে আলাদাভাবে ন্যূনতম ২.২৫ পয়েন্টসহ উভয়টিতে সমন্বিতভাবে ৫.৫০ পেতে হবে।
এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী সুপ্রভাতকে বলেন, ‘ফলাফল বিপর্যয়ের কারণে ভর্তি আবেদন যোগ্যতায়ও শিথিল করা হয়েছে। এছাড়া আমাদের এবারের ভর্তি পরীক্ষা চারটি ইউনিটের অধীনে অনুষ্ঠিত হবে। ২০১৭ সালে যারা এইচএসসি পাশ করেছে শুধু তারাই ভর্তি আবেদন করতে পারবে।
প্রসঙ্গত, বিগত বছরগুলোতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০টি ইউনিটের অধীনে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতো। এর মধ্যে বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে এ ইউনিট, কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের অধীনে বি-১, বি-২, বি-৩, বি-৪, বি-৫, বি-৬, বি-৭, বি-৭এইচ, বি-এস ও বি-৮ ইউনিটে পরীক্ষা হয়। এছাড়া ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের অধীনে সি-১,২,৩ ইউনিটে, সমাজবিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ডি-১,২,৩ ইউনিটে, ইউনিটে আইন অনুষদের অধীনে ‘ই’ ইউনিটে, জীববিজ্ঞান অনুষদ অধীনে এফ-১,২,৩ ইউনিটে, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের অধীনে ‘জি’ ইউনিটে, শিক্ষা অনুষদে ‘এইচ’ ইউনিটে, ইনস্টিটিউট অব মেরিন সায়েন্সেস অ্যান্ড ফিশারিজে ‘আই’ ইউনিটে এবং ইনস্টিটিউট অব ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস এ ‘জে’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হতো।